ভিটামিন ই ক্যাপসুল খাওয়া কি স্বাস্থ্যের জন্য ভালো?

ভিটামিন ই শরীরের জন্য খুবই দরকারী। বাজারে ভিটামিন ই ক্যাপসুল পাওয়া যায়। আজ আমরা জানব ভিটামিন ই ক্যাপসুল খাওয়ার নিয়ম, উপকারীতা এবং পার্শ প্রতিক্রিয়া। 

 

ভিটামিন ই ক্যাপসুল খেলে কি

হয়

 

আমরা অনেকেই ভিটামিন ই ক্যাপসুল সম্পর্কে জানি না। আজকে আবার আপনাদের সঙ্গে ভিটামিন ই ক্যাপসুল সম্পর্কে বিস্তারিত আলােচনা করব। ভিটামিন ই ক্যাপসুল খেলে কি হয় তা নিচে দেওয়া হল : আপনি যদি প্রতিদিন একটি করে ভিটামিন ক্যাপসুল খেয়ে থাকেন তাহলে আপনার চুল বৃদ্ধিতে সাহায্য করে। ভিটামিন ই খেলে চুলের গােড়ায় রক্ত সংবহন করে এবং চুলের পুষ্টি পৌঁছে দিতে সাহায্য করে। ভিটামিন ই এর কারণে চুলের গােড়া মজবুত হয়। ভিটামিন-ই ব্যবহার করলে পাতলা চুল ঘন হয় মােটা হয়। খুশকির উপদ্রব এর এর কারণে আমরা অনেক কিছু ব্যবহার করে থাকি কিন্তু তা থেকে রেহাই পাওয়া সম্ভব হয় না। কিন্তু আপনি যদি ভিটামিন-ই খান তাহলে খুব সহজেই স্বল্প সময়ের মধ্যে খুশকির উপদ্রব থেকে বাঁচা যায়।

 

ভিটামিন ই ক্যাপসুল খাওয়ার নিয়ম

 

আপনারা অনেকেই জানেন ভিটামিন ই ক্যাপসুল আমাদের শরীরের জন্য অনেক উপকারী। আপনারা অনেকেই ভিটামিন ই ক্যাপসুল ব্যবহার করেন আবার অনেকেই। ভিটামিন ই ক্যাপসুল সম্পর্কে কিছুই জানে না। আজকে আমরা আপনাদেরকে জানাবাে ভিটামিন ই ক্যাপসুল খাওয়ার নিয়ম সম্পর্কে। ভিটামিন ই ক্যাপসুল সেবন করলে আমাদের শরীরের অনেক উপকার হয় যেমন, আমাদের মাথায় চুল যদি পাথর থাকে তাহলে ভিটামিন ই ক্যাপসুল খাবারের পরে আমাদের চুল মােটা হতে সাহায্য করে। ভিটামিন ই ক্যাপসুল এর কারণে আমাদের চুল দ্রুত বৃদ্ধিতে সাহায্য করে। ভিটামিন ই ব্যবহার করার ফলে আমাদের মাথার খুশকি উপদ্রব দূর করা সম্ভব হয়। আরাে অনেক বিষয় সাহায্য করে ভিটামিন ই ক্যাপসুল।।

 

ভিটামিন ই এর উপকারিতা 

READ MORE:  চা আমাদের সুস্বাস্থ্যের জন্য কতটা উপকারী?

 

আমরা অনেকেই ভিটামিন ই চেয়ে থাকি। আমরা অনেকেই জানি ভিটামিন ই এর উপকারিতা সম্পর্কে। হয়তাে অনেকেই জানেন না ভিটামিন ই এর উপকারিতা সম্পর্কে আজকে আমরা আপনাদের সঙ্গে ভিটামিন ই এর উপকারিতা সম্পর্কে আলােচনা করব।

ভিটামিন ই সেবন করলে আমাদের রােগ প্রতিরােধ ক্ষমতা বাড়াতে সাহায্য করে।

ভিটামিন ই এর সেবনের মাধ্যমে চুল এবং ত্বকের স্বাস্থ্য ভালাে রাখতে সাহায্য করে।

ভিটামিন নিয়ে আমাদের বয়সের ছাপ দূর করতে সাহায্য করে। আমাদের বয়স কম এমন মনে হয়।

ভিটামিন ই আমাদের চুল পড়া বা চুল পেকে যাওয়া

এসকল সমস্যার সমাধান করতে সাহায্য করে। ভিটামিন ই ক্যাপসুল এর উপকারিতা সম্পর্কে বললাম আশা করি আপনারা বুঝতে পেরেছেন ইনশাআল্লাহ।

 

ভিটামিন ই এর পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া 

 

সকল ঔষধের কিছু উপকারী দিক এবং কিছু পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া থেকে থাকে। তেমনি ভিটামিন ই এর কিছু পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া রয়েছে। আমরা ওপরে ভিটামিন ই এর উপকার এবং অপকার সম্পর্কে আলােচনা করেছি। এখন। আমরা ভিটামিন ই এর পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া সম্পর্কে আলােচনা করব।

ভিটামিন-ই ব্যবহার করার ফলে বমি বমি ভাব অনুভূত হতে পারে।

ভিটামিন-ই সেবন করার পরে ডায়রিয়া হতে পারে।

ভিটামিন ই ব্যবহার করার ফলে পেট ব্যথা হতে পারে।

ভিটামিন ই ব্যবহার করলে এলার্জি বা রেষ সমস্যা হতে পারে।

ভিটামিন-ই ব্যবহার করলে মারাত্মক পর্যায়ে শ্বাসকষ্ট হতে পারে।

যে কোন ওষুধের পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া রয়েছে। তাই যে কোনাে ওষুধ সেবন করার আগে ডাক্তারের পরামর্শ দেওয়া আমাদের জরুরি।

 

ভিটামিন ই ক্যাপসুল কোনটা ভালাে

 

ভিটামিন ই ক্যাপসুল অনেক কোম্পানির অনেক রকম রয়েছে। আমরা সকলেই জানি স্কয়ার কোম্পানির খুব ভালাে। ঔষধের জন্য কোন কোম্পানিগুলাে ভালাে তা আমরা আগে আলােচনা করেছি। আপনারা চাইলে সেখান থেকে দেখে আসতে পারেন। ভিটামিন ই মেয়েদের চুলের জন্য অনেক উপকারী। ভিটামিন-ই চুল বৃদ্ধিতে অনেক সাহায্য করে।

READ MORE:  এলার্জি দূর করার উপায় জেনে নিন।

ভিটামিন-ই ত্বককে উজ্জ্বল করে এবং ত্বকের শুষ্কতা দূর করে। ভিটামিন ই ব্যবহারের ফলে সূর্য রশ্মি থেকে ত্বককে রক্ষা করে। শীতে আমাদের ঠোঁট অনেক শুকিয়ে যায় এবং সেখানে গাছের ভিটামিন ই এর ফলে ঠোঁট স্বাভাবিক হয়ে পড়ে। ভিটামিন-ই ব্যবহারের মাধ্যমে আমরা আমাদের মুখের সৌন্দর্য বৃদ্ধি করতে পারি। ভিটামিন ই আমরা অনেক। রকম কাজে ব্যবহার করতে পারি তবে মেয়েরা ভিটামিন ব্যবহার করে থাকে মূলত চুল বৃদ্ধি করে এবং চুল সুন্দর করার কারণে।

 

ভিটামিন ই ক্যাপসুলের বিকল্প ভিটামিন ই সমৃদ্ধ খাবার

 

সবচেয়ে উত্তম হলো ভিটামিনের ক্যাপসুল না খেয়ে ভিটামিন ই সমৃদ্ধ খাবার গ্রহণ করা। 

কতগুলি সর্বোচ্চ ভিটামিন ই সমৃদ্ধ খাবার হলো- – সূর্যমুখীর বীজ, লাল মরিচের গুঁড়া, কাঠ বাদাম, পেস্তা বাদাম, চিনা বাদাম, জলপাই এর আচার, কচুর মূল, পালং শাক।