কেন সাবান ৯৯.৯% জীবাণু ধ্বংস করলেও বাকি ০.১% জীবাণু ধ্বংস করে না?

আমরা তো হাত ধোয়ার জন্য মূলত সাবান, হ্যান্ডওয়াশ এসব ব্যবহারন করে থাকি। বাজারে নানা ব্যান্ডের সাবান, হ্যান্ডওয়াশ পাওয়া যায়। ব্র্যান্ড আলাদা হলেও সব কোম্পানির সাবান- হ্যান্ডওয়াশের মধ্যে একটি সাধারণ ব্যাপার লক্ষ করা যায় যে এসব কোম্পানির বিজ্ঞাপন এবং সাবান- হ্যান্ডওয়াশের প্যাকেটের ওপর লেখা থাকে “৯৯.৯%” জীবাণু মেরে ফেলে। তাহলে এখন প্রশ্ন হলো যেখানে সাবান বা হ্যান্ডওয়াশ ৯৯.৯% জীবাণু মেরে ফেলতে সক্ষম সেখানে বাকি ০.১% জীবানু কি কারণে রক্ষা পায়? এই ০.১% জীবাণু কি নিজেরা ইচ্ছে করেই নিজেদের বাঁচিয়ে নেয় যেন একটি শক্তিশালী সাবান কিভাবে তাদের বৃহৎ জনগোষ্ঠীকে নিশ্চিহ্ন করে দিয়েছে সেই গল্পটি শুনিয়ে বাকি জীবাণুদের বাঁচাতে পারে? এই ০.১% জীবাণু আসলেই কি খুব শক্তিশালী? চলুন জেনে আসি কি কারণে এরা রক্ষা পায়? 

 

প্রথমেই বলি জীবাণু কি? জীবাণু হলো এক প্রকার মাইক্রোস্কোপিক জীব যা আমাদের দেহে প্রবেশ করে আমাদেরকে রোগাক্রান্ত করে ফেলতে পারে। জীবাণু বলতে ব্যাকটেরিয়া, ভাইরাস এদেরকেই বোঝায়। এরা কিভাবে আমাদের দেহে প্রবেশ করে? 

 

সাধারণত অন্য ব্যক্তির সংস্পর্শের মাধ্যমে; ফোন, কাপড়, যেকোনো প্রকার বস্তুর গায়ে এরা লেগে থাকতে পারে এবং আমরা যখন সেই বস্তুটির সংস্পর্শে আসি বা স্পর্শ করি তখন সেই জীবাণুগুলোও আমাদের দেহে প্রবেশ করে। আমাদের হাতের তালুর নিচে যে ঘামগ্রন্থি রয়েছে, যা ঘাম ও তেল উৎপন্ন করে। আর এই ঘাম ও তেলই জীবাণুগুলো আমাদের ত্বকে লেগে থাকার জন্য অত্যন্ত আদর্শ একটি মাধ্যম হিসেবে কাজ করে। আমাদের হাতের ত্বকে যে তেল রয়েছে, এই তেলের কারণে জীবাণু আমাদের হাতে লেগে থাকে। 

 

তাই আমরা যে সাবান ব্যবহার করি হাতকে জীবাণু মুক্ত করার জন্য তার মূল উদ্দেশ্য হলো আমাদের হাত থেকে তেলকে সরিয়ে জীবাণুর বাড়ি ধ্বংস করা। অ্যালকোহোল বা কেরোসিন হলো দ্রাবক যা তেলকে কার্যকরভাবে ধ্বংস করতে পারে, একই সাথে জীবাণু ধ্বংস করতে পারে। কিন্তু অনেকক্ষেত্রে ঘন ঘন ব্যবহারের ফলে এগুলো বিষাক্ত প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি করতে পারে। আর কেরোসিন বা অ্যালকোহোলের গন্ধও কটু হয়ে থাকে অনেকের কাছে। 

 

তাই তেল দূরীকরণের আদর্শ সমাধান হলো সাবান ব্যবহার করা। কিন্তু এক্ষেত্রেও নতুন একটি  সমস্যা রয়েছে। হাসপাতালের জন্য যেসব সাবান তৈরি করা হয় সেসব সাবানে অ্যালকোহোল থাকে জীবাণু ধ্বংসের জন্য এবং ত্বকের উপরিভাগের তেল দূর করে জীবাণুর বাসা ধ্বংস করার জন্য। কিন্তু বাণিজ্যিকভাবে তৈরি এমনিতে সাবানগুলিতে অ্যালকোহোল থাকে না। তেলের কণা এবং এদের সাথে সম্পৃক্ত জীবাণু ধ্বংসের জন্য সাবানের অণুগুলো পানি দিয়ে তেল দ্রবীভূত করে যা পরে পানির প্রবাহের সাথে সাথে ধুয়ে যায়। এভাবে সাবান জীবাণুর বাড়ি ধ্বংস করে জীবাণুর থেকে আমাদের রক্ষা করে। এখানে কিন্তু জীবাণু হত্যা করা হচ্ছে না। শুধু পানির সাথে তেল দ্রবীভূত হয়ে অপসারিত হচ্ছে জীবাণু। 

 

তাহলে বেশিরভাগ সাবান নির্মাতা প্রতিষ্ঠানগুলো যে তাদের বিজ্ঞাপনের এবং প্যাকেটের গায়ে লিখে দেয় ৯৯.৯% জীবাণু তাদের কোম্পানির সাবান ধ্বংস করতে সক্ষম? এটি কিভাবে ঘটে? এটি কি তবে সত্য নয়? 

 

আদৌতে এ প্রশ্নের উত্তর হলো এটি সত্য তবে তা তাদের ল্যাবরেটরির রিপোর্টের ওপর ভিত্তি করে। তাদের ল্যাবেরেটরি পরীক্ষার ফলাফল সত্য এবং নির্ভরযোগ্য, এবং ল্যাবরেটরিতে পরীক্ষায় ৯৯% এর বেশি জীবাণুই মারা যায়। তবে এখানে একটি বড় সমস্যা রয়েছে। ল্যাবে তাদের পরীক্ষা পদ্ধতি হলো একটি পৃষ্ঠের ওপর জীবাণু স্থাপন করে তার ওপর সাবান দিয়ে সেই পৃষ্ঠটি মুছা এবং তারপর অবশেষে জীবাণুগুলির বিশ্লেষণ করা হয়। 

 

কিন্তু ল্যাব আর আমাদের অগোছালো দৈনন্দিন জীবন তো এক নয়। নিঃসন্দেহে একটি ল্যাবের ভিতরের পরিবেশ, ল্যাবরেটরির বাইরের পরিবেশের তুলনায় অনেক বেশি পরিষ্কার। তাই বাস্তব জীবনের ফলাফল আর ল্যাবরেটরির ফলাফল তো আর এক হবে না। কিন্তু সাবান নির্মাতা প্রতিষ্ঠানগুলো তাদের এই ল্যাব রিপোর্টের ওপর ভিত্তি করেই তাদের বিজ্ঞাপনে এই লাইনটি ব্যবহার করে যে ৯৯.৯% জীবাণুই ধ্বংস করতে সক্ষম।  আর সাবান যেহেতু শুধু তেল অপসারণ করে জীবাণু দূর করে তাই কোম্পানিগুলো একথা কোনোভাবেই বলতে পারে না যে ১০০% জীবাণু ধ্বংস করে তাদের সাবান। 

 

এক গবেষণায় দেখা গেছে যে সাবান এবং পানি দিয়ে হাত ধৌত করা ব্যাক্টেরিয়ার উপস্থিতি কেবল ৯% দূর করে। সুতরাং বোঝায় যাচ্ছে, প্রকৃতপক্ষে ০.১% এর থেকেও অনেক বেশি জীবাণু বেঁচে যায়, তবে হ্যা জীবাণু হাতের ত্বক থেকে অনেকাংশেই দূর হয়ে যায়। তাই কেউ বিভ্রান্ত হয়ে আবার সাবান দিয়ে হাত পরিষ্কার করা ছেড়ে দিবেন না, নিশ্চয়ই সুস্থ থাকার জন্য সাবান দিয়ে হাত ধোঁয়া অত্যন্ত জরুরী৷ সাবান আসলে আমাদের হাতের জীবাণুগুলোকে মেরে ফেলছে না, বরং তাদের ধুয়ে ফেলছে। আমাদের পরিবেশে লক্ষ লক্ষ জীবাণু আছে যার যে কোনো একটিই হতে পারে আমাদের জন্য মারাত্মক ক্ষতিকর এবং বিপদজনক।  এসব জীবাণু থেকে বাঁচতে আমাদের শরীরের ইমিউন সিস্টেম শক্তিশালী রাখতে হবে যার জন্য আমাদের পুষ্টিকর খাবার গ্রহণ করতে হবে এবং একই সাথে পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন থাকতে হবে। 

 

সাবান দিয়ে হাত পরিষ্কার করা মোটেও খারাপ নয়, এটি অত্যন্ত কার্যকরী । তবে সাবান যদি অ্যালকোহোল যুক্ত হয় অথবা হ্যান্ড স্যানিটাইজার দিয়ে হাত পরিষ্কার করা বেশি কার্যকর হবে। কারণ এতে জীবাণু মরে যাবে। আমাদের মনে রাখতে হবে যখন একটি সাবান প্রস্তুতকারক কোম্পানি দাবি করে যে তাদের সাবান ৯৯.৯% পর্যন্ত জীবাণু ধ্বংস করতে সক্ষম, তখন তারা প্রযুক্তিগতভাবে সঠিক, কিন্তু কার্যত ভুল। তাদের ল্যাবের ফলাফল সম্পূর্ণরূপে বিভ্রান্তিকর নয়, এটি প্রকৃতপক্ষে একটি শক্তিশালী বিপণন বার্তা!