প্রতিদিন সাবান দিয়ে গোসল করার অভ্যাস আজই ছাড়ুন

প্রতিদিন গোসল করার সময় সাবান না ব্যবহার করাই ভালো। গোসল রোজ করছেন এটা খুবই ভাল। কিন্তু যে সাবান দিয়ে আপনি রোজ ঘসে ঘসে গা পরিষ্কার করছেন, চকচকে হচ্ছেন, সেটা কিন্তু মোটেই ভাল নয়।

 

সাবান মানেই খার। সেটা কম মাত্রা অথবা বেশি মাত্রা হতে পারে। কিন্তু রোজ আপনার শরীরে খার গেলে তা আপনার শরীরকে মোটেই চিরকাল ভাল রাখবে না। যার সুফল আজ টের পাচ্ছেন, তার অনেক বেশি কুফল কাল টের পেতে চলেছেন।

 

গোসলের সময় নিয়মিত সাবানের ব্যবহার করলে ভালোর চেয়ে খারাপই বেশি হয়। বিশেষ করে অ্যান্টিব্যাকটেরিয়াল সাবানের ব্যবহারে এই ক্ষতি বেশি হয়।

 

প্রতিদিন কেন নয় সাবান? 

 

দেখতে যতই সুন্দর হোক, গন্ধ যতই মোহময়ী হোক সাবান বেশী ব্যবহার করলেই বিপদ।

এর রঙ, গন্ধের পেছনে লুকিয়ে আছে ক্ষতিকারক সব কেমিক্যাল বা রাসায়নিক পদার্থ যা আমাদের নরম ও কোমল ত্বকের জন্য যথেষ্ট ক্ষতিকারক।

অধিকাংশ সাবানেই থাকে ক্ষার। এগুলি একটু পর পর বার বার ব্যবহার করলে অনেক ক্ষেত্রেই আমাদের ত্বক রুক্ষ ও খসখসে হয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা দেখা যায়।

স্কিন হোয়াইটেনিং সোপে যে মারকিউরি থাকে তার থেকে কিন্তু আমাদের ত্বকে নানা ধরনের স্কিন ডিসিস বা ইনফেকশন হওয়ার সম্ভাবনা থাকে।

প্রতিদিন সাবান ব্যবহার করলে আমাদের শরীরে যে ন্যাচারাল অয়েল থাকে যা আমাদের ত্বকের নমনীয়তা রক্ষা করে তার প্রভাব নষ্ট হয়ে যায়।

ফলে ত্বক একেবারে রুক্ষ হয়ে যায়|

আমাদের দেহে খারাপ ব্যাকটেরিয়ার সাথে সাথে ত্বকের বন্ধু কিছু ভালো ব্যাকটেরিয়াও থাকে যারা কিন্তু আমাদের দেহের ধুলো বালি বা ঘামের থেকে জন্ম নেওয়া খারাপ জীবাণু বা ব্যাকটেরিয়ার সাথে লড়তে সাহায্য করে।

প্রতিদিন সাবান ব্যবহার করে আমরা এই সব ভালো ব্যাকটেরিয়াদেরও কিন্তু মেরে ফেলি|

তাই প্রতিদিন গোসলের সময় সাবান না ব্যবহার করাই ভালো| তাই বলে সাবান ব্যবহার করা ছেড়েই দেবেন এমনটাও করা উচিত নয়।

READ MORE:  চুল পড়া বন্ধ করার ১২টি ঘরোয়া উপায়

 

কীভাবে ব্যবহার করা উচিত সাবান? 

 

সব সাবানেই কম-বেশি ক্ষতিকারক কেমিক্যাল থাকে। তাই একটু দেখে শুনে, জেনে বুঝে সাবান ব্যবহার করলেই চিন্তা নেই।

আমরা অনেকেই দিনে দুই কিংবা তিনবার গোসল করি। এবং প্রতিবারই সাবান ব্যবহার করি।

এই অভ্যেসটি এবার থেকে ত্যাগ করতেই হবে। কারণ এটি আমাদের ত্বকের জন্য মারাত্মক ক্ষতিকারক।

দিনে একবার করে সাবান ব্যবহার করাই শ্রেয়। সেক্ষেত্রে আপনি গোসলের সময় স্ক্রাবার ব্যবহার করতে পারেন।

যারা কাজের সূত্রে নিয়মিত বাইরে যান, তারা ভালো মান এর বডি ওয়াশ ব্যবহার করুন। যা অন্তত ক্ষারীয় সাবানের থেকে শরীরের জন্য ভালো।

কারণ যেহেতু বাইরে কাজে বের হলে গায়ে ধুলো-ময়লা বা ঘাম বেশি হওয়ার সম্ভাবনা বেড়ে যায়।

তাই নিজের শরীরের পরিস্কার পরিচ্ছন্নতার দিকে খেয়াল রাখাটা খুব জরুরি।

যদি বাইরে থেকে এসেই গোসলের স্বভাব থাকে, সেক্ষেত্রে সাবান ব্যবহার করা শ্রেয়, কারণ এতে ধুলো-ময়লা থাকলে তা পরিষ্কার হয়ে যাবে|

তবে এক্ষেত্রে অবশ্যই গোসলের পর গায়ে বডি লোশন ব্যবহার করা উচিত। এতে ত্বক রুক্ষ হবে না বরং কোমল থাকেবে।

 

কড়া রোদে বেশি থাকেন যারা

 

যাদের বেশি রোদে ঘুরে কাজ করতে হয়, তারা কিন্তু ধুলো-ময়লা বা ঘাম পরিষ্কার করার জন্য প্রতিদিন সাবান বা বডি ওয়াশ ব্যবহার করতে পারেন।

এক্ষেত্রেও কিন্তু গোসলের পর অতি অবশ্যই বডি লোশন প্রয়োগ করা প্রয়োজন। এর ফলে আমাদের ত্বক নমনীয়তা হারায় না।

 

বেশিরভাগ সময়ে ঘরে থাকেন যারা

 

যাদের বাইরে বেশি বেরোতে হয় না বা যারা বাড়িতেই কাজে ব্যস্ত থাকেন, তাদের কিন্তু সপ্তাহে তিনদিন এর বেশি সাবান না ব্যবহার করলেই ভালো।

কারণ এক্ষেত্রে বাইরের ধুলো বা ময়লা কোনোটাই কিন্তু বেশি প্রভাব ফেলে না। প্রতিদিন গোসল করুন। তবে তিনদিন এর বেশি সাবান ব্যবহার করবেন না।

READ MORE:  খুশকি দূর করার উপায় জেনে নিন

 

কোন ধরনের সাবান ব্যবহার করবেন?

 

নিজেদের পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন রাখা অতি আবশ্যক, কিন্তু তাই বলে ত্বকের ক্ষতি করাও ঠিক নয়।

সাধারণত বিশেষজ্ঞদের মতে সপ্তাহে দুই থেকে তিন দিন সাবান ব্যবহার করাই উচিত।

এছাড়া সাবান অবশ্যই ভালো ব্র্যান্ডের এবং যাতে কেমিক্যাল কম থাকে সেরকম ব্যবহার করা উচিত। চেষ্টা করুন ভালো মান এর সাবান কিংবা বডি ওয়াশ ব্যবহার করতে।

লোভনীয় বিজ্ঞাপনের ফাঁদে পা দিয়ে মানহীন সাবান ব্যবহার করবেন না।

তাই এখন থেকে সচেতন হন এবং সাবান ব্যবহার করার আগে ভেবে নিন যে আপনি কি ঠিকমতো তা ব্যবহার করছেন?