মুখের ক্যান্সার হওয়ার আগেই বাঁচার উপায়

মুখের ক্যান্সার- Oral cancer

 

আসুন আমরা আজকের নিবন্ধে মুখের ক্যান্সার এবং এর চিকিৎসা সম্পর্কে বিস্তারিত বলি।

 

মুখের ক্যান্সারের লক্ষ্মণগুলো হলো- The symptoms of oral cancer are:

 

  •  দাঁত ব্যথা
  • জিহ্বার ব্যথা
  • কানে ব্যথা
  • একটি বৃদ্ধি বা একটি গলদ মুখের ভিতরে দেখা যায়
  • রাবার গালের লক্ষণ
  • ডেঞ্চার পরতে সমস্যা
  • মুখ, ঘাড়, নীচের ঠোঁট, বা চিবুক অসাড়তা
  • গলা ব্যথা
  • চোয়ালের শক্ততা
  • চোয়ালের ব্যথা
  • মুখে সাদা বা লাল রঙের দাগ
  • গিলতে অসুবিধা
  • বেদনাদায়ক গ্রাস
  • হঠাৎ ওজন কমে যাওয়া
  • মুখে দীর্ঘস্থায়ী ফোসকা
  • গলায় ফোলা বৃদ্ধি
  • মুখ থেকে রক্তপাতের অস্বাভাবিক লক্ষণ
  • মসলাযুক্ত খাবার খাওয়ার সময় জ্বালা পোড়া 

 

মুখের ক্যান্সারের কারণ – Causes of oral cancer

 

  • ব্যক্তির রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা দুর্বল হওয়ার কারণে ওরাল ক্যান্সার হতে পারে। দুর্বল ইমিউন সিস্টেমের ফলে ঘন ঘন সংক্রমণ এবং অন্যান্য সমস্যা দেখা দেয়।
  • মুখের ক্যান্সারের প্রধান কারণ তামাক সেবন। এর বাইরে, কিছু লোক যারা অতিরিক্ত তামাক বা সিগারেট খায় তাদের মুখের ক্যান্সার হওয়ার ঝুঁকি বেশি থাকে।
  • অতিরিক্ত মদ্যপানের ফলে মুখের ক্যান্সার হয়। সীমিত অ্যালকোহল সেবনে কোন গুরুতর সমস্যা হয় না। কিন্তু যদি একজন ব্যক্তি দীর্ঘস্থায়ী মদ্যপানকারী হন, তবে তার মুখের ক্যান্সারের পাশাপাশি লিভার ফেইলিওর হওয়ার ঝুঁকি বেশি থাকে।
  • নারকেলের খাবার বা তৈলাক্ত খাবারের অতিরিক্ত ব্যবহার মুখের ক্যান্সারের ঝুঁকি বাড়ায়। অতএব, ব্যক্তিদের তাদের ডায়েটে সবুজ শাকসবজি, লেবু, বাদাম ইত্যাদি স্বাস্থ্যকর খাবার অন্তর্ভুক্ত করা উচিত।

মুখের ক্যান্সার হওয়ার জন্য অন্যান্য ঝুঁকির কারণগুলির মধ্যে রয়েছে:

 

  • মুখের ক্যান্সার হিউম্যান প্যাপিলোমাভাইরাস /এইচপিভি (যৌন সংক্রমণ) রোগীদের ক্ষেত্রেও হতে পারে। এজন্য একজন ব্যক্তির এই ভাইরাসের জন্য পরীক্ষা করা উচিত।
  • দীর্ঘ সময় ধরে সূর্যের দিকে মুখ উন্মোচন করলে মুখের ক্যান্সার হতে পারে।
  • যে ব্যক্তির পরিবারে মুখের ক্যান্সারের ইতিহাস রয়েছে তার আবার এই অবস্থার বিকাশের সম্ভাবনা বেশি।
  • মৌখিক ক্যান্সার বা অন্যান্য ধরনের ক্যান্সারের পারিবারিক ইতিহাস মুখের ক্যান্সার হওয়ার সম্ভাবনা বাড়িয়ে তুলতে পারে।
  • মহিলাদের তুলনায় পুরুষদের মুখে ক্যান্সার হওয়ার সম্ভাবনা বেশি বলে জানা যায়।
  • দুর্বল পুষ্টি মৌখিক ক্যান্সার হওয়ার সম্ভাবনা বাড়ায়
READ MORE:  প্রতিদিন ২টি খেজুর বদলে দিবে আপনার জীবন

 

মুখের ক্যান্সার প্রতিরোধের উপায়- Ways to prevent mouth cancer-

 

১. ভিটামিন এবং মিনারেল সমৃদ্ধ খাবার খান

২. দীর্ঘ সময় সূর্যের সংস্পর্শ এড়িয়ে চলুন

৩. নিয়মিত দ্বি-বার্ষিক দাঁতের চেক-আপের জন্য যান

৪. ধুমপান ত্যাগ কর

৫. যেকোনো ধরনের তামাক সেবন বন্ধ করুন

 মদ্যপান বন্ধ করুন বা পরিমিত পরিমাণে পান করুন

 

মুখের ক্যান্সারের চিকিৎসা- Oral cancer treatment-

 

রেডিয়েশন থেরাপি

 

রেডিয়েশন থেরাপি অস্বাভাবিকরূপে বাড়তে থাকা ক্যান্সার কোষগুলিকে চটজলদি চূর্ণবিচূর্ণ করা এবং মারার জন্য উচ্চ আলোকচ্ছটার এক্স রে তরঙ্গ ব্যবহার করে। টিউমারের আকার সঙ্কুচিত করার জন্য রেডিয়েশন থেরাপি সমস্ত ধরণের ক্যান্সারের ক্ষেত্রে প্রায় সময়ই ব্যবহার করা হয়। ক্লিনিক্যাল গবেষণাগুলি ইঙ্গিতপূর্ণ যে স্টেজ (পর্যায়) 1 মৌখিক ক্যান্সারে যৎসামান্য অস্ত্রোপচার দরকার হয় এবং ক্যান্সার-প্রতিরোধক ওষুধগুলির সাথে রেডিয়েশন নেওয়ার দ্বারা ব্যক্তি কার্যকরভাবে মৌখিক ক্যান্সারের সাথে যুদ্ধ করতে এবং একে বশে আনতে পারে।

 

কেমোথেরাপি

 

কেমোথেরাপি চিকিৎসা হচ্ছে একটা প্রক্রিয়া যাতে ক্যান্সার-প্রতিরোধী ওষুধগুলির বিভিন্ন সংমিশ্রণ দ্রুত ছড়িয়ে পড়া ক্যান্সার কোষগুলিকে নিশানা করার জন্য আপনার রক্তপ্রবাহে সরাসরি প্রয়োগ করা হয়। মৌখিক ক্যান্সারের ক্ষেত্রে বিশেষ করে ওরোফ্যারিংজিয়াল (মুখ এবং গলনালীসংক্রান্ত) ক্যান্সারে, কেমোথেরাপির সাহায্যে চিকিৎসা অত্যন্ত কার্যকর হতে দেখা গিয়েছে। মৌখিক ক্যান্সারের চিকিৎসার ক্ষেত্রে ব্যবহৃত প্রচলিত কেমো ওষুধগুলি হল সিপ্ল্যাটিন, কার্বোপ্ল্যাটিন, হাইড্রক্সিইউরিয়া। যাই হোক, কেমোথেরাপি এর নিজের উপকারিতা এবং সেই সাথে পার্শ্বপ্রতিক্রিয়াগুলির সাথে আসে। কেমো চিকিৎসা চলাকালীন আপনি বমি বমি ভাব, বমি, সংবেদন হারানো, এবং খিদের অভাব অনুভব করতে পারেন। যাই হোক, সফল কেমো চক্রের পর, বেশির ভাগ পার্শ্বপ্রতিক্রিয়াগুলি ধীরে ধীরে কমতে শুরু করে এবং কেমোথেরাপি কোর্স সম্পূর্ণ হওয়ার পর ব্যক্তি স্বাভাবিক জীবনযাপন করতে পারেন।

 

  • অস্ত্রোপচার

 

মৌখিক ক্যান্সারের ক্ষেত্রে অস্ত্রোপচার হল

 

সবচেয়ে প্রচলিত প্রক্রিয়া। কিন্তু একজন সাধারণ সার্জনের চেয়ে, একজন বিশেষজ্ঞ অংকোসার্জন দ্বারা অস্ত্রোপচার করানো অতিমাত্রায় সুপারিশ করা হচ্ছে। এটা এজন্য কারণ একজন অংকোসার্জন হলেন বিশেষভাবে প্রশিক্ষিত সার্জন যিনি ক্যান্সার দূর করা এবং ছড়ানোয় বাধা দিতে অস্ত্রোপচার পরিচালনা করেন। মৌখিক ক্যান্সার সম্পূর্ণ নির্মূল করা নিশ্চিত করার জন্য তাঁরা অতি আধুনিক নিখুঁত প্রযুক্তি এবং অস্ত্রোপচারমূলক করেন। প্রক্রিয়াগুলি ব্যবহার ক্লিনিক্যাল গবেষণা নিশ্চিত করেছে যে মুখগহ্বরের (মুখ) অস্ত্রোপচার হচ্ছে একটা ব্যাপক অস্ত্রোপচার এবং কখনও কখনও মুখ এবং মুখের ভিতরের বিকৃতির দিকেও নিয়ে যেতে পারে। একটা সম্ভাবনা থাকতে পারে যে অস্ত্রোপচারের পর খাবার খাওয়া এবং ওষুধ নেওয়ার জন্য আপনার আলাদা করে নল লাগাতে এবং সেটার সাহায্য দরকার হতে পারে। আরও একটা সম্ভাবনা থাকতে পারে যে আপনি কণ্ঠস্বরের সক্ষমতা (গলার আওয়াজ) অস্থায়ীভাবে বা স্থায়ীভাবে হারাতে পারেন।

READ MORE:  থ্যালাসেমিয়া থেকে সাবধান।