কিউই ফল- মাত্র একটি ফলেই এত উপকার?

কিউই ফল- Kiwi fruit

 

প্রতিদিন ৩টি কিউই ফল খেলে এতে থাকা বায়োঅ্যাক্টিভ পদার্থগুলো রক্তচাপ কমাতে সাহায্য করে। নিম্ন রক্তচাপ স্ট্রোক এবং হার্ট অ্যাটাকের ঝুঁকি অনেকাংশে কমিয়ে দেয়। আজ এই কিউই ফল নিয়ে বিস্তারিত বলব। 

 

কিউইর কিছু প্রাথমিক তথ্য: Some basic facts about Kiwi:

 

বৈজ্ঞানিক নাম: অ্যাক্টিনিডিয়া ডেলিসিওসা

 

পরিবার: অ্যাক্টিনিডিয়াসিয়াই, ছোটজাতের ফুলের গাছ ।

 

  • সাধারণ নাম: কিউই, কিউই ফল। প্ৰথমে এটিকে “চাইনিজ গুজবেরি” বলা হত।

 

  • সাধারণ হিন্দি নাম: কিউই ফল

 

উদ্ভাবন স্থান এবং ভৌগৌলিক বণ্টন: আদিতে চিনের উত্তর-মধ্য এবং পূর্ব অংশে এই ফলটির চাষ হতো। চিনের পর বাণিজ্যিকভাবে এই ফলটির চাষ শুরু হয় নিউজিল্যান্ডে। পরে দ্বতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময় ফলটি ব্রিটিশ এবং মার্কিন সেনাদের কাছে জনপ্রিয় হয়ে ওঠে। বর্তমানে বিশ্বের বহু এলাকায় কিউইর চাষ হচ্ছে।

 

  • না জানা তথ্য: কিউই ফলকে বলা হয় “নিউট্রিশনাল অল স্টার বা পুষ্টির জগতে মহাতারকা” কারণ রাটগার্স বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকেরা জানিয়েছেন, সাধারণভাবে যে 21 টি ফল সবচেয়ে বেশি খাওয়া হয় তার মধ্যে এর পুষ্টিগুণ সর্বাধিক।

 

কিউই ফলের স্বাস্থ্যগত উপকারিতা- Health Benefits of Kiwi Fruit

 

পরিপাক প্রক্রিয়ার জন্য: তন্তু সমৃদ্ধ হওয়ার কারণে বিপাকীয় প্রক্রিয়ায় কিউইর নির্দিষ্ট উপকারিতা আছে এবং রেচক (ল্যাক্সেশন) বৃদ্ধি করে কোষ্ঠ্যকাঠিন্য এবং পেটের সমস্যা (ইরিটেবল বাওয়েল সিনড্রোম) থেকে মুক্তি দেয়। প্রোটিন ভালভাবে পরিপাকেও সাহায্য করে।

 

হার্টের জন্য: পটাশিয়াম সমৃদ্ধ হওয়ার জন্য কিউই রক্তচাপ কমাতে সাহায্য করে এবং কার্ডিওভাসকিউলার সমস্যার ঝুঁকি কমায় । সিস্টোলিক এবং ডায়াস্টোলিক রক্তচাপ কমানো ছাড়া কিউই রক্তে কোলেস্টেরলের মাত্রা কমায় এবং হার্টের অক্সিডেটিভ ক্ষতি কমায়।

 

প্রতিরোধী ক্ষমতার জন্য: কিউই যেহেতু ভিটামিন সি সমৃদ্ধ, সে কারণে আপনার প্রতিরোধী ক্ষমতা বাড়াতে সাহায্য করে। এটি ব্যাক্টিরিয়া এবং ফাঙ্গাস বিরোধী হওয়ায় আপনার ঊর্ধ্ব শ্বাসনালীতে সংক্রমণ ঠেকায় এবং পোড়ার ঘায়ের সংক্রমণ থেকে রক্ষা করে। কিউই ক্যান্সারের ঝুঁকিও কমাতে পারে।

READ MORE:  অ্যালার্জি হলে কি করবেন ?

 

  • ত্বকের জন্য: অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট খাদ্য হওয়ার কারণে আপনার শরীরে বার্ধক্যজনিত বলিরেখা এবং ত্বকে কুঞ্চন কমায় এবং একই সঙ্গে সূর্যের রশ্মির ক্ষতিকর প্রভাব থেকে রক্ষা করে।

 

  • চোখের জন্য: বার্ধক্যবিরোধী উপাদান শুধুমাত্র ত্বকের ওপরেই কাজ করে না, বয়সের কারণে ম্যাকিউলার ডিজেনারেশন বা রেটিনার ক্ষতি হলে তা রোধ করতে পারে কারণ এর মধ্যে লুটিন

 

আছে।

 

ঘুমের জন্য: কিউই খেলে ভাল ঘুম হয় এবং তার সময়সীমা উপযুক্ত হয় বলে ঘুমের সমস্যার মোকাবিলায় কার্যকরী ভূমিকা নিতে পারে ।

 

হার্ট সুস্থ রাখে: প্রতিদিন এক-দুটি ফল খেলে অক্সিডেটিভ স্ট্রেস হওয়ার সম্ভাবনা কমে। যা হৃদরোগসহ বিভিন্ন স্বাস্থ্য সমস্যা দূর করে। এতে রক্তে ফ্যাটের পরিমাণ কমে। ফলে ব্লকেজ প্রতিরোধ করা যায়। এতে থাকা ম্যাগনেসিয়াম হার্ট ভালো রাখতে সাহায্য করে।