যেসব সাধারণ ভুলে আপনি শেয়ার বাজারে ক্ষতির সম্মখীন হবেনই

সকল বিনিয়োগকারী অনেক আশা ও স্বপ্ন নিয়েই শেয়ার বাজারে আসে। অনেকেই ভালো টাকা লাভ করতে পারে আবার অনেকেই বহু টাকা লস দিয়ে শেয়ার বাজার সম্পর্কে নেতিবাচক ধারনা নিয়ে বের হয়ে যায়।

এখানে যেই ব্যক্তি লাভ করল এবং যেই ব্যক্তি টাকা লস করল তাদের মধ্যে বেশ পার্থক্য থাকে। শেয়ার বাজারে বিনিয়োগে আমরা অনেকেই কিছু ভুল করে থাকি এবং সেই সব ভুলগুলো খুবই সাধারন।

আপনি হয়ত এই ভুলগুলো সম্পর্কে অবগত আছেন তবুও আরেকবার মনে করিয়ে দেওয়া জন্য আজকের এই লেখা।

১। অলস টাকা বিনিয়োগ না করা

শেয়ার বাজারে এমন টাকা বিনিয়োগ করতে হবে যা কমপক্ষে ১ বছরের মধ্যে এই টাকা আপনার লাগবে না।

বিষয়টা একটু কঠিন হলেও আপনাকে এই নীতি মেনে চলতে হবে। যত বেশী সময়ের জন্য আপনি টাকা বিনিয়োগ করবেন ততই ঝুঁকি কমবে এবং লাভের পরিমান বাড়বে।

 

২। শেয়ার কেনার আগে কোম্পানি যাচাই না করা

 

ধরুন, আপনার কাছে ১ কোটি টাকা আছে এবং এই টাকা দিয়ে আপনি একটি বাড়ি কিনতে চাচ্ছেন। আজকে সকালে ব্যাংক থেকে টাকা তুললেন, কিছু বাড়ি দেখলেন এবং বিকালের মধ্যে একটা বাড়ি কিনে ফেললেন। এমনটি আপনি কখনই করবেন না!

যখন আপনি বাড়ি কিনবেন তখন অনেকগুলো বিষয় যাচাই করবেন। যেমন, বাড়িটির জমি নিয়ে কোন জামেলা আছে কিনা, বাড়িটির মূল মালিক কে, আর কোন ওয়ারিস আছে কিনা, কেন বিক্রি করতে চাচ্ছে, বাড়িটি কোন মানের পন্য দিয়ে বানানো হয়েছে, আশে পাশের পরিবেশ কেমন, ইত্যাদি নানা বিষয় আপনাকে অবশ্যই জানতে হবে।

 

ঠিক তেমনি যখন আপনি একটি কোম্পানির শেয়ার কিনবেন তখন অবশ্যই সেই কোম্পানি নিয়ে বিস্তারিত জানতে হবে।

প্রথমেই জানতে হবে কোম্পানিটি কোন ধরনের পণ্য বানায়, কোম্পানির সুনাম কেমন, কোম্পানিটির পরিচালক কারা, বর্তমানে আর্থিক অবস্থা কেমন, সামনের দিনগুলোতে কেমন করতে পারে, কোম্পানিটি কত টাকা লোনে আছে, বিগত বছরগুলোতে কেমন লভ্যাংশ প্রদান করেছে ইত্যাদি নানা বিষয়।

 

 

৩। সব টাকা একসাথে বিনিয়োগ করা

সব টাকা একসাথে বিনিয়োগ করলে দারুন ঝুঁকির মধ্যে থাকবেন।

ধরুন, গ্রামীনফোনের শেয়ারে আমি ১০ লাখ টাকা বিনিয়োগ করব এবং এই ক্ষেএে একবারে ১০ লাখ টাকার শেয়ার না কিনে, ১০ লাখ টাকাকে ৩ ভাগ করে অর্থাৎ ৩ লাখ ৩৩ হাজার টাকা করে বিনিয়োগ করা আমার জন্য উচিত হবে।

এইভাগে বিনিয়োগ করলে হয়ত লাভের পরিমান কিছুটা কম হলেও লস হওয়ার সম্ভাবনা অনেকটাই কমে যাবে। 

 

 

৪। ১টি কোম্পানির প্রেমে পড়া

আপনি যখন বিভিন্ন কোম্পানি নিয়ে এনালাইসিস করলেন তখন একটি কোম্পানি আপনার খুবই ভালো লাগল।

যার ফলে আপনি শুধু মাএ ঐ কোম্পানিতেই বিনিয়োগ করবেন বলে ঠিক করে রেখেছেন, এই ফলে আপনি কিন্তু মারাত্নক ঝুঁকি মধ্যে থাকবেন। কখনই সব টাকা ১টি কোম্পানির শেয়ারে বিনিয়োগ করা ঠিক হবে না।

আপনি যত টাকা বিনিয়োগ করতে চান তা কমপক্ষে ৩/৪টি শেয়ার বিনিয়োগ করা উত্তম তবে ৭/৮টির বেশী কোম্পানিতে বিনিয়োগ করবেন না।

 

৫। লোন বা ধার করে শেয়ার কেনা

আপনার কাছে যদি মনে হয় কোন একটি কোম্পানি থেকে ২ মাসের মধ্যে ৫০% লাভ করতে পারবেন তার পরেও কখনই লোন বা ধার করে শেয়ার কিনবেন না।

কেননা যে কোন সময় যে কোন ঘটনা ঘটতে পারে, যেমন রাস্তা মোড়ে থাকে ট্রাফিক সিগন্যাল যে কোন সময় লাল থেকে সবুজ হতে পারে এবং সবুজ থেকে লাল হতে পারে। আপনার নিজের টাকা নিয়ে ঝুঁকি নিতে পারেন তবে অন্যের টাকা দিয়ে নয়।

 

৬। কেন বিনিয়োগ করছি তা না জানা

ধরুন একটি শেয়ারের দাম হঠাত করেই বাড়া শুরু করল। অনেক মানুষই সেই শেয়ার কিনছে এবং প্রতিদিন তারা লাভ করছে, এই বার আমিও সেই শেয়ারে বিনিয়োগ করলাম এবং এর পরে ঘটলো উল্টো ঘটনা। দিন দিন সেই শেয়ারের দাম কমা শুরু করল।

এই ভুল আমাদের মধ্যে ৬৫% বিনিয়োগকারী করে থাকে। আপনি যখন একটি কোম্পানির শেয়ার কিনতে যাবেন তখন অবশ্যই সেই শেয়ারটি কেন কিনছেন তা বুজতে হবে। আপনি যেই দামে শেয়ারটি কিনবেন তার পিছনে অবশ্যই ভালো যুক্তি থাকতে হবে।

সর্বপরি, শেয়ার বাজার নামক টাকা বানানোর মেশিন থেকে যদি টাকা বানাতে চান তবে সেই মেশিন চালানোর দক্ষতা গড়ে তুলতে হবে।