শেয়ার বাজারে টাকা বিনিয়োগে ৪টি ভুল

শেয়ার শব্দের সাথে বাজার শব্দটি যুক্ত থাকায় স্বাভাবিকভাবেই বুজতে পারা যায় যে, এখানে কিছু একটা কেনা বেচা করা হয়। শেয়ার বাজারে সাধারনত স্টক এক্সচেঞ্জে তালিকাভুক্ত কোম্পানির মালিকানার হাত বদল করা হয়।

শেয়ার বাজার সবার জন্য খোলা, যে কেউ শেয়ার বাজারে টাকা বিনিয়োগ করতে পারে। শেয়ার বাজারে টাকা বিনিয়োগ করার অনেক কারন আছে।

যেমন, শেয়ারের দাম বাড়লে বিক্রি করে লাভ পাওয়া যায়, কোম্পানি ভালো করলে ডেভিডেন্ট পাওয়া যায়, পার্ট-টাইম ব্যবসা হিসাবে শেয়ার বাজারে বিনিয়োগ করা যায়, বড় বড় কোম্পানির এজিএমে যোগদান করা যায়, এমনকি কোম্পানির পরিচালনায় নিজেকে জড়ানো যায়, এছাড়াও আরোও অনেক কারন আছে।

 

 

১। ভাগ্য পরীক্ষা করতে চাওয়া

আপনি যদি নিজের ভাগ্য পরীক্ষা করার জন্য শেয়ার বাজারে আসতে চান, তবে আপনার জন্য খুবই বড় হতাশা সামনে অপেক্ষা করছে।

ধরুন, বর্তমানে ৩৫০টির বেশী কোম্পানি এবং ফান্ড শেয়ার বাজারে তালিকাভুক্ত আছে এই ৩৫০টি script সম্পর্কে যদি আপনার ন্যূনতম ধারনা না থাকে তাহলে অনুমান করে শেয়ার কিনে বেশী দূর যেতে পারবেন না।

শেয়ার বাজারে বিনিয়োগ করার জন্য অনেক বেশী শিক্ষিত হওয়ার দরকার নেই, তবে আপনার মধ্যে অবশ্যই বিনিয়োগ সম্পর্কে সাধারন ধারনা থাকতেই হবে।  

২। খুব তাড়াতাড়ি ধনী হতে চাওয়া

শেয়ার বাজারে বিনিয়োগের মাধ্যমে আপনি ধণী হতে পারবেন, তবে বিশ্বাস করুন, খুব তাড়াতাড়ি ধনী হতে চাইলে আপনি খুব তাড়াতাড়ি মূলধন হারিয়ে ফেলবেন।

তখন একবুক হতাশা নিয়ে শেয়ার বাজার থেকে বের হয়ে যেতে হবে।

আপনি একটু বাস্তবিক চিন্তা করুন! ধরুন, আজকে বাজার থেকে একটি  আম গাছের চারা নিয়ে আসলেন এবং বাড়ির উঠানের এক কোনে গাছটি রোপন করলেন এবং আগামী কালকে সেই চারা গাছের কাছে ফলের আশা করলে কখনই ফল পাবেন না।

তবে এইটা ঠিক যে, ভালো জাঁতের চারা রোপন করলে, সঠিকভাবে যত্ন নিলে বছর গড়াতেই ফলের আশা করতে পারেন। ঠিক তেমনি শেয়ার বাজারে ভালো কোম্পানিতে বিনিয়োগ করলে এবং যথেস্ট সময় দিলে অবশ্যই ভাল কিছু আশা করতেই পারেন।

৩। যে কোনো কিছু একটা শুরু করতে চাই

শেয়ার বাজারে বিনিয়োগ করা টাকা আয়ের একটি ভালো উৎস হতে পারে, তবে ক্ষেত্র বিশেষ পরিস্থিতি বুঝে সিন্ধান্ত গ্রহন করতে হবে।

আপনার যদি টাকা ইনকাম করার একদম কোন মাধ্যমই না থাকে এবং বর্তমানে হাতে কিছু টাকা জমা আছে, এই পরিস্থিতিতে কোন অবস্থায় শেয়ার বাজারে বিনিয়োগ করা ঠিক হবে না।

আপনার হাতে থাকা টাকা দিয়ে ব্যবসা করুন, ব্যবসা থেকে যেই টাকা লাভ করতে পারবেন সেই টাকা শেয়ার বাজারে বিনিয়োগ করুন, এতে আপনি অনেকটাই ঝুঁকি মুক্ত থাকতে পারবেন এবং যা দিন শেষে আপনাকে আর্থিক স্বাধীনতা প্রদান করবে।

৪। যে কোনো সময়ে টাকা ক্যাশ করা যাবে

ধরুন, আপনার কাছে এখন ১০ লাখ টাকা আছে যা কিছু দিন পরে হয়ত অন্য কাজে লাগবে, এই ক্ষেএে আপনি ভাবতেই পারেন এই কিছুদিন টাকা অলস না রেখে শেয়ার বাজারে বিনিয়োগ করি, কেননা যে কোনো সময়ে টাকা ক্যাশ করা যাবে।

শেয়ার বিক্রি করার ২ কার্যদিন পর আপনি চাইলে টাকা ক্যাশ করতে পারবেন। কিন্তু যদি আপনি ঐ মুহূর্তে লসে থাকেন এবং আপনার টাকার খুবই দরকার পড়ে তবে কিন্তু টাকা লস দিয়েই বের হয়ে যেতে হবে।

তাই আপনাকে একটি নির্দিষ্ট সময়ের জন্য টাকা বিনিয়োগ করতে হবে। এটা পারে ১ বছর কিংবা তার বেশী যে কোন সময়।