মধুমাসের হরেক রকম ফলের শরবতের রেসিপি

জৈষ্ঠ্য মাসকে বলা হয় মধুমাস। এ মাসে হরেকরকম বাহারী ফলমূল ছেয়ে যায় আমাদের চারপাশ। সেই সাথে এই মাসে গরম প্রচুর। গরমে সুস্থ এবং প্রাণবন্ত থাকতে চাইলে মধুমাস এর ফলগুলো দিয়ে স্বাস্থ্যকর সব শরবত বানিয়ে খেতে পারেন। তাই আপনাদের জন্য বেশ কিছু রেসিপি নিয়ে এলাম। 

 

কাঁচা আমের শরবত

 

উপকরণ

 

কাঁচা আমের টুকরো- ১ কাপ

চিনি- স্বাদ মতো

পুদিনা পাতা- ১০টি

ধনেপাতা কুচি- ২ চা চামচ

কাঁচা মরিচ- ১টি (কুচি)

ভাজা জিরার গুঁড়া- আধা চা চামচ

বিট লবণ- ১ চা চামচ

লেবুর রস- ১ চা চামচ

লবণ- সামান্য

 

প্রস্তুত প্রণালি

 

প্রথমে ব্লেন্ডারে ১ গ্লাস ঠান্ডা পানি ও অন্যান্য সব উপকরণ একইসঙ্গে ব্লেন্ড করে নিন। এরপর আরও দুই গ্লাস ঠান্ডা পানি মিশিয়ে ব্লেন্ড করুন সঙ্গে সঙ্গে পরিবেশন করুন পুদিনা পাতা ও লেবুর টুকরো দিয়ে সাজিয়ে। 

 

লিচুর শরবত

 

উপকরণ 

লিচু: ১০-১২টি

চিনি: ১ টেবিল চামচ

লবণ: ১ চা চামচ

গোলমরিচ গুঁড়ো: ১ চা চামচের ৪ ভাগের ৩ ভাগ

বরফের কিউব: ৩-৪টি

পুদিনা পাতা: ৩-৪টি

লেবুর রস: ১ চা চামচ

জল: ১ কাপ

 

প্রস্তুত প্রণালী:

 

প্রথমে লিচুর খোসা ও বীজ বাদ দিন।

এর পরে সব উপকরণ একসঙ্গে মিশিয়ে ব্লেন্ডারে মিশিয়ে নিন।

গ্লাসে ঢেলে ফ্রিজে রাখুন মিনিট ১৫।

বার করে তার মধ্যে বরফের কিউব দিন।

পুদিনা পাতা দিয়ে সাজিয়ে দিতে পারেন।

এবার পরিবেশন করুন ঠান্ডা ঠান্ডা লিচুর শরবত।

এই শরবতে গরমে শরীরকে আরাম দেবে। তার সঙ্গে লিচুর পুষ্টিগুণ তো আছেই।

 

জামের শরবত

 

উপকরণ

পাক জাম- ২ কাপ, 

চিনি- স্বাদমতো, 

ঠান্ডা পানি- পরিমাণমতো, 

বিট লবণ- স্বাদমতো, 

কাঁচা মরিচ- স্বাদমতো 

লেবুর রস- ১ টেবিল চামচ।

 

প্রস্তুত প্রণালী :

 

প্রথমে জাম ধুয়ে চটকে বীজগুলো ছাড়িয়ে নিন। এরপর এবার একটি ব্লেন্ডারে বীজ ছাড়ানো জাম, পানি, চিনি, লেবুর রস, কাঁচা মরিচ ও বিট লবণ দিয়ে ভালোভাবে ব্লেন্ড করে নিন। এবার গ্লাসে ঢেলে বরফ কুচি মিশিয়ে গ্লাসে পরিবেশন করুন। জাম আপনার পেট ঠান্ডা রাখতে সাহায্য করবে। স্বাস্থ্য রাখবে ভালো। 

 

উপকরণ:

 ১০-১২ কোয়া কাঁঠাল, 

ঘন ঠান্ডা দুধ- ২ কাপ, 

চিনি-২ টেবিল চামচ, 

পরিমাণমতো ঠান্ডা পানি এবং বরফ।

 

প্রস্তুত প্রণালী: 

 

আপনি প্রথমে কাঁঠালের কোয়া থেকে বিচি ছাড়িয়ে কাঁঠাল কোয়া থেকে হাত দিয়ে চটকে নিতে হবে। এরপর ব্লেন্ডারে দুধ, ঠান্ডা পানি, চিনি ও কাঁঠালের কোয়া দিয়ে ভালোভাবে  ব্লেন্ড করে নিন। শরবত যতটা পাতলা কিংবা ঘন করতে চান তার ওপর নির্ভর করবে পানির পরিমাণ। পুদিনা পাতা দিয়ে সাজিয়ে দিতে পারেন। এবার গ্লাসে ঢেলে বরফ মিশিয়ে পরিবেশন করুন ঠাণ্ডা ঠাণ্ডা সুস্বাদু কাঁঠালের শরবত।

 

তরমুজের শরবত 

 

উপকরণ:

 

তরমুজের শরবত তৈরির উপাদান সমূহ:

 

তরমুজ নিতে হবে

 

চিনি নিতে হবে ২ কাপ লেবুর রস নিতে হবে পরিমান মতো

 

  • বরফ কুচি সামান্য পরিমান (অপশনাল)

 

প্রস্তুত প্রণালী :

 

তরমুজের শরবত বানানোর জন্য অবশ্যই মিষ্টি স্বাদের পাকা তরমুজ বাছাই করতে হবে। বাজারে অনেক জাতের বীজ ছাড়া তরমুজ পাওয়া যায় ৷

 

শরবত বানানোর জন্য বীজ ছাড়া তরমুজই অনেক ভালো। তবে যদি আপনি বীজ যুক্ত তরমুজ কিনেন; তাহলে তরমুজ কাটার পরে প্রথমেই বীজগুলো ফেলে নিবেন।

 

এখন তরমুজ কুচি কুচি করে কেটে চিনি দিয়ে তিন থেকে চার ঘণ্টা ঢেকে রাখতে হবে।

তরমুজ কাটার সময় তরমুজের রস যেন পরে নষ্ট না হয়ে যায় সেদিকে খেয়াল রাখবেন।

দুই থেকে তিন ঘণ্টা এভাবে রাখার পরেও তরমুজের রস থেকে শরবত তৈরি করার উপযুক্ত হবে।

 

বেলের শরবত

উপকরণ :

 

১. বেল ১টি

২. টকদই ১০০ গ্রাম

৩. তেঁতুল সামান্য

৪. লবণ ও চিনি পরিমাণমতো।

 

প্রস্তুত প্রণালী:

 

প্রথমে পানি দিয়ে বেল ভালো করে চটকে ছেঁকে নিন। তেঁতুল অল্প পানিতে ভিজিয়ে কাঁথ বের করে নিন।

 

এরপর বেলের মধ্যে টকদই, লবণ, চিনি ও তেঁতুলের কাঁথ ভালো করে মিশিয়ে নিন ব্লেন্ড করে নিন।

 

কমলার শরবত

 

উপকরণ 

 

কমলালেবু – ৪ টি 

চিনি- দুই চা চামচ অথবা আপনার স্বাদমতো     

বরফ টুকরা -৪ টি

 

প্রস্তুত প্রণালী 

 

প্রথমে ৩ টি কমলা অর্ধেক করে কেটে লাইম জুসার বা হাত দিয়ে রস বের করুন।

কমলার রস ব্লেন্ডার এ  দিয়ে তাতে চিনি ও বরফ দিয়ে ব্লেন্ড করুন।     

বাকি  ১ টি কমলা থেকে হাত দিয়ে  রস বের করে দুই ধরণের জুস একসাথে চামচ দিয়ে মিশিয়ে ঠাণ্ডা করে পরিবেশন করুন। 

 

আনারসের শরবত

 

উপকরণ 

 

মাঝারী আকৃতির আনারস- ১ টা

পানি- অর্ধেক কাপ

চিনি- পছন্দ মত

লেবুর রস- ১ টা লেবুর অর্ধেক

বরফ কিউব- প্রয়োজন মত

 

প্রস্তুত প্রণালী:

 

আনারসটিকে ভালো মত খোসা ছাড়িয়ে ছোট ছোট টুকরো করে কেটে নিতে হবে।

 

এখন একটি ব্লেন্ডারে আনারসের টুকরো গুলোকে দিতে হবে।

 

সাথে পানি এবং চিনি দিয়ে দিতে হবে।

 

খুব ভালো করে ব্লেন্ড করতে হবে। কোনো প্রকারের দানা থাকা যাবে না।

বেশ কয়েকবার ব্লেড করা হয়ে গেলে একটা ছাঁকনির সাহায্যে ছেঁকে নিতে হবে।

খুব বেশি ঘন মনে হলে পানি যোগ করে নেওয়া যাবে।

মিষ্টি পছন্দ হলে চিনি যোগ করে নিতে হবে।

পরিবেষণের সময় লেবুর রস, বরফ কিউব দিতে হবে।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *