যৌন শক্তি বাড়াতে খেজুরের ভূমিকা

খেজুরের উপকারিতা ও পুষ্টিগুন প্রচুর। এই মরু ফলটি খেতে যেমন সুস্বাদু তেমনি খেজুরের পুষ্টি উপাদান রয়েছে পর্যাপ্ত। খেজুরের পুষ্টি উপাদান এর মধ্যে রয়েছে সালফার, প্রচুর মাত্রায় ফাইবার, উপকারী তেল, ক্যালসিয়াম,আয়রন, পটাশিয়াম, ফসফরাস, কপার এবং আরও নানাবিধ খনিজ। প্রতি ১০০ গ্রাম পরিষ্কার ও তাজা খেজুরে ভিটামিন-সি রয়েছে যা থেকে ২৩০ ক্যালরী (৯৬০ জুল) শক্তি উৎপাদন করে।খেজুরে স্বল্প পরিমাণে পানি থাকে যা শুকানো অবস্থায় তেমন কোন প্রভাব ফেলে না। খেজুর খেলে আমাদের শরীরের নানা উপকারে আসে। যেমন যারা কোষ্ঠকাঠিন্য বা কনস্টিপেশন বা কোনো ধরনের পেটের রোগে ভুগছেন তাদের জন্য় তো এই ফলটি মহৌষধির সমান। খেজুরের উপকারিতা বলে শেষ করার মত নয়। নিয়মিত খেজর খেলে আপরার শরীর সুস্থ থাকবে।

 

খেজুরের প্রকারভেদ 

 

আমরা অনেকেই ভাবতে পারি খেজুরের প্রকারভেদ দিয়ে কি লাভ। তবে আপনার খেজুরের প্রকারভেদ সম্পর্কে জানা থাকলে সহজে ভালো খেজুর ক্রয় করতে পারবেন। পৃথিবীতে খেজুরের বিভিন্ন প্রকার রয়েছে। নিচে খেজুরের প্রকারভেদ নিয়ে আলোচনা করা হলো।

১. আজুয়া খেজুর।

২. শুকনা সাদা খুরমা খেজুর।

৩. শুকনা কালো খুরমা খেজুর।

৪. জ্বিহাদি খেজুর।

৫. গাছ পাকা আলজেরি খেজুর।

৬. মরিয়ম খেজুর।

৭. কালিয়া মরিয়ম খেজুর।

৮. ইন্দোনেশিয়া গাছ পাকা খেজুর।

৯. মিনিপি খেজুর।

১০. দাপাস খেজুর।

১১. ডেট ক্রাউন খেজুর।

১২. কামরাঙ্গা মরিয়ম খেজুর।

১৩. ফরিদা খেজুর ।

১৪. তিওনেশিয়া খেজুর।

১৫. বরই খেজুর।

১৬. নাগাল খেজুর।

১৭. আমদ শুপরী খেজুর।

১৮. লিবিয়া দাপাস খেজুর।

১৯. শুরুরী খেজুর।

২০. কালভে খেজুর।

 

যৌন শ‌ক্তি বৃ‌দ্ধি ও যৌবন ধ‌রে রা‌খে খেজুর

 

খেজুরের উপকারিতা ব্যাপক। খেজুর চুষলে পিপাসা দমন হয়। অধিকাংশ হালুয়া তৈরীতে এ কারণেই খেজুর ব্যাবহার করা হয়। প্রসূতির জন্য তাজা খেজুরের ন্যায় উত্তম খাদ্য আর নেই। তাজা খেজুর না পাওয়া গেলে শুস্ক খেজুরই যথেষ্ট।

খেজুরের চেয়ে আর কোন উত্তম জিনিস থাকলে আল্লাহ তা’আলা মরিয়াম (আঃ) কে ঈসা (আঃ) এর জন্মের পর তাই খাওয়াতেন। কুরআনে কারীমের সূরা মরইয়মে আল্লাহ তা’আলা হযরত মরইয়ম (আঃ) কে নির্দেশ

দিয়েছেন যে, খেজুরের ডাল ধরে নাড়া দাও, তুমি তরতাজা সুপক্ক খেজুর পেয়ে যাবে।

এতে প্রমাণিত হয় যে, প্রসূতির জন্য খেজুরের চেয়ে উত্তম খাবার দ্বিতীয়টি আর নেই।

হাকীমগন লিখেছেন, খেজুর খেলে নেফাসের রক্ত দ্বারা দেহের ভিতরের আবর্জনা বের হয়ে যায় -তা অধিক পরিমানে নির্গত হয় এবং স্ত্রীর স্বভাবে উত্তাপ সৃষ্টি হয় ও দৈনিক শক্তি বৃদ্ধি পায়। খেজুর দেহের শিরা কোমল করে এবং প্রসব ও শিরায় খিচুনির ফলে “আকটান পেইন” নামক যে ব্যাথা সৃষ্টি হয় তা দূর করে।

 

এই ফল বলদায়ক ও শক্তিবৃদ্ধিতে দুর্দান্ত কাজ করে। প্রতিদিন বিকালে ৪থেকে ৫টি খেজুর খাওয়ার অভ্যাস গড়ে তুলুন আপনার সকল সমস্যা সমাধান হবে। এটি এমন একটি ফল যাতে প্রচুর ক্যালরি শক্তি রয়েছে। তাছাড়া এতে অনেক ভিটামিন মিনারেল রয়েছে। এই গুলো যৌন সমস্যা সমাধান করে ও যৌন মিলন দীর্ঘ সময় করতে সাহায্য করে। শুকনা খেজুর অথবা যেকোন ধরনের খেজুর খেলে আপনি উপকৃত হবেন।

 

খেজুর হলো সমস্ত শুকনো ফলের মধ্যে সবচেয়ে সুস্বাদু এবং এই ফলটি যৌন ক্ষমতা বাড়াতে সাহায্য করে। পুষ্টিগুণে সমৃদ্ধ, এই শুকনো ফলগুলি সাধারণত শক্তির জন্য খাওয়া হয়। এ কারণেই মুসলমানদের মধ্যে খেজুর দিয়ে রমজানের রোজা ভাঙার রেওয়াজ রয়েছে। যেহেতু রোজা আপনার শরীরকে শক্তি থেকে বঞ্চিত করে, তাই ক্যালোরি-ঘন খেজুর খাওয়া আপনার শক্তি বাড়াতে সাহায্য করে। বিজ্ঞান বলে যে খেজুর ফল এমনকি আপনার যৌন ক্ষমতা বাড়াতে পারে, আপনার শুক্রাণুর গুণমান উন্নত করতে পারে এবং আপনার বিয়ে বাঁচাতে পারে। গবেষণা প্রমাণ করেছে যে ঐতিহ্যগত জ্ঞান সর্বদা কি বলে আসছে। ফলগুলি আপনার লিবিডো বাড়িয়ে এবং আপনার যৌন কর্মক্ষমতা উন্নত করে আপনার যৌন জীবনকে বাড়িয়ে তোলে।