ফলমূল ও শাকসবজি জীবাণুমুক্ত করবেন যেভাবে-

ঘর পরিষ্কারের সময়ও নানাবিধ জীবাণুনাশক ব্যবহার করছি আমরা। কিন্তু বাজার থেকে যে সবজি বা ফল কেনা হয় সেগুলো জীবাণুমুক্ত করার উপায় সম্পর্কে আমরা অনেকেই জানি না। এমনকি সুপারশপ বা ফুটপাত- সব জায়গায় জীবাণুর ছড়াছড়ি। বিশেষ করে যেসব স্থানে বাজার বসে সেসব স্থানে প্রতিনিয়ত ব্যাকটেরিয়ার জন্ম হচ্ছে। তাই ফল ও সবজি ঘরে এনে পরিষ্কার করা জরুরি। কিছু উপায় রয়েছে যেগুলো অবলম্বন করলে ফল ও সবজি সহজেই জীবাণুমুক্ত করা সম্ভব। জেনে নিন সেসব উপায়-

 

জীবানুমুক্ত ফলমূল ও শাকসবজি: 

 

১. সবার আগে অবশ্যই, হাত ধোয়া চাই

 

হ্যাঁ, ঠিকই পড়েছেন! ফুড অ্যান্ড ড্রাগ অ্যাডমিনিস্ট্রেশন-এর তথ্যানুযায়ী, করোনাভাইরাসের সংক্রমণের ঝুঁকি এড়াতে অবশ্যই ফলমূল ও শাকসবজি ধোয়ার আগে ও পরে কমপক্ষে ২০ সেকেন্ড ধরে হ্যান্ডওয়াশ বা সাবান দিয়ে ভালোভাবে হাত ধুয়ে নিতে হবে।

 

২. ফল ও শাকসবজি না ধুয়ে রাখবেন না ফ্রিজে নিয়ে

 

বাজার থেকে সদ্য কিনে আনা ফলমূল ও শাকসবজি কখনোই না ধুয়ে সরাসরি ফ্রিজে রাখা যাবে না। এগুলো কোনো প্যাকেটে বা বোলে নিয়ে ধোয়ার জন্য আলাদা জায়গায় সরিয়ে রাখতে হবে।

 

৩. কল ছেড়ে ধুলে পানির ধারায়, ফল ও শাকসবজি পরিষ্কার হয়ে যায়

 

বাজার থেকে ফল ও শাকসবজি কিনে ঘরে আনার পর কল ছেড়ে চলমান পানির ধারায় দু’হাত দিয়ে ঘষে ঘষে খুব ভালো করে ধুতে হবে, যেন ছুরি দিয়ে কাটার সময় ধুলোবালি ও জীবাণু সেগুলোর ভেতর প্রবেশ করতে না পারে। আর মূলজাতীয় সবজি যেমন: আলু, গাজর ইত্যাদি এবং শসা, তরমুজ ও কুমড়ার মতো শক্ত খোসার ফল ও সবজি ধোয়ার সময় ব্রাশ বা স্পঞ্জ দিয়ে ঘষে পরিষ্কার করে নিলে ভালো হয়।

 

৪. ফল ও শাকসবজি ধুতে আর, সাবান করবেন না ব্যবহার

 

সব ধরনের সাবানেই ফর্মালডিহাইড থাকে, যা পেটে গেলে পেট খারাপের কারণ হতে পারে। তাই ফলমূল ও শাকসবজি ধোয়ার ক্ষেত্রে সাবান, স্যানিটাইজার, ক্লিনিং ওয়াইপ ও ডিটারজেন্ট ব্যবহার থেকে বিরত থাকতে হবে।

 

৫. পানির সাথে ভিনেগার মিশিয়ে, তাতে ফল-সবজি নিন ধুয়ে

 

জীবাণুমুক্ত করতে, ফল ও সবজি পরিষ্কার করার জন্য আছে আরেকটি সহজ পদ্ধতি! ২ লিটার পানিতে ২ টেবিল চামচ লবণ ও আধা কাপ ভিনেগার মিশিয়ে, ফলমূল ও শাকসবজি তাতে ৫-১০ মিনিট ভিজিয়ে রেখে পানি দিয়ে ধুয়ে ফেললেই হয়ে যাবে পরিষ্কার এবং জীবাণুমুক্ত।