এশার নামাজ কয় রাকাত? প্রশ্ন এবং উত্তর

এশার নামাজ কয় রাকাত? প্রশ্ন এবং উত্তর >> নামাজ পড়লেই কেবল হবে না। বরং সেটা হতে হবে বিশুদ্ধভাবে। আর বিশুদ্ধভাবে নামাজ আদায় করতে হলে নামাজ সম্পর্কে জ্ঞান থাকাটা জরুরি।
এসব কিছু বিবেচনায় রেখে সকল পাঠকদের জন্য আজ ‘এশার নামাজ কয় রাকাত’ বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করছি।

 

এশার নামাজ কয় রাকাত?

 

প্রতিদিন আমরা পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ আদায় করে থাকি। যার মধ্যে কিছু রাকাত আদায় করি ফরজ হিসাবে। আর কিছু সুন্নত বা নফল হিসাবে।

কিন্তু কোন ওয়াক্তের নামাজ কতো রাকাত তা নির্ধারণ করার ক্ষেত্রে কেবল ফরজ নামাজের রাকাতগুলোর সংখ্যাটা হিসাবে আনা যেতে পারে।

কেননা ফরজ নামাজ ব্যতীত বাকি সকল প্রকার নামাজই নফল নামাজের অন্তর্ভুক্ত। আপনারা যে নামাজকে সুন্নত নামে শুনে আসছেন সেটা মূলত নফল নামাজেরই একটি স্তর।

নফল মানে হলো – অতিরিক্ত। অর্থাৎ ফরজের অতিরিক্ত। নফল নামাজ মূলত আল্লাহ তায়ালা ফরজ করেননি।

রাসুলুল্লাহ – সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম – ফরজ নামাজ আদায়ের আগে অথবা পরে নিজ ইচ্ছায় কয়েক রাকাত নামাজ আদায় করতে।

যেহেতু সেই নামাজগুলো ফরজের অতিরিক্ত ছিলো। যা তিনি অত্যন্ত গুরুত্বের সাথে আদায় করতেন। তাই সেই নামাজকে নফল বা অতিরিক্ত নামাজ বলা হয়।

আর রাসুলুল্লাহ – সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম – যে নামাজগুলো নফল হিসাবে আদায় করতে। তা আমাদের জন্য সুন্নত হয়ে গেছে।

কেননা রাসুলুল্লাহ – সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম – যে আমল করতেন সেটা আমাদের জন্য সুন্নত হিসাবে গণ্য হয়।

এ হিসাবে বলা যেতে পারে,
এশার নামাজ ৪ রাকাআত সুন্নত, ৪ রাকাআত ফরজ এবং ২ রাকাআত সুন্নত। অর্থাৎ মোট ১০ রাকাআত। ৪ রাকাআত ফরজ আবশ্যিক।অর্থাৎ কোনভাবেই এই ৪ রাকাআত বাদ দেওয়া যাবে না। এশার নামাজের পরে ৩ রাকাআত বেতর নামাজ আদায় করতে হয়।

 

READ MORE:  মোবাইলে কোরআন দেখে তেলাওয়াত করা যাবে কি?

এশার নামাজ পনেরো ও সতেরো রাকাত এর ব্যাপারটি কি?

 

এশার নামাজের কথা উল্লেখ করেন তারা কি ভুল? না আসলে তারাও সঠিক কারন কোন হাদিসে বণির্ত আছে চার রাকাত ফরজ নামাজের পূর্বে চার রাকাত নফল নামাজ পড়ার কথা উল্লেখ আছে এবং বেতের নামাজের আগে দুই রাকাত নফল নামাজ পড়ার নিয়ম আছে, তাহলে হলো পনেরো রাকাত।

তারপর শেষে দুই রাকাত নফল নামাজ ও পড়ার কথা উল্লেখ আছে। তাহলে হল সতেরো রাকাত।