গর্ভাবস্থায় লিপস্টিক ব্যবহার করা যাবে কি?

আপনি যদি গর্ভবতী হন তাহলে কি লিপস্টিক ব্যবহার করা উচিত? 

 

গর্ভাবস্থায় যেহেতু ভ্রুণ থেকে একটি শিশু নারী শরীরে বেড়ে ওঠে, তাই এই সময় বিশেষ সাবধানতা অবলম্বন করা প্রয়োজন। এমনিতেই গর্ভাবস্থায় যে কোনও প্রসাধনী সামগ্রী ক্রয় করার আগে সেগুলি ‘BPA মুক্ত’, ‘সুগন্ধি মুক্ত’, ‘DEA ছাড়া’, ‘প্যারাবেন মুক্ত’, ‘কোনওরকম ফ্যাথালেট ছাড়া’ কি না, তা দেখে নেওয়া প্রয়োজন। আর বিশেষ করে লিপস্টিক কেনার ক্ষেত্রে কম দামি লিপস্টিক ব্যবহার করা এরিয়ে চলুন। সঙ্গে লিপস্টিক পরে খাওয়ার না খাওয়াই ভালো। 

 

গর্ভাবস্থায় লিপস্টিক ব্যবহারে হতে পারে পেটের বাচ্চাদের ক্ষতি। সীসা ও প্যারাবেন ক্যানসারের কারণ হতে পারে

 

বেশিরভাগ লিপস্টিকেই মজুত থাকে সীসা ও প্যারাবেন। লিপ্সটিকে থাকা সীসা শরীরের জন্য বেশ ক্ষতিকর। এতে দুশ্চিন্তা ও হার্টের সমস্যা হতে পারে। লিপস্টিকগুলিতে প্রচুর প্রিজারভেটিভ রয়েছে যা ক্ষতিকারক। যদি তাদের পরিমাণ বেশি হয় তবে ক্যান্সারের সমস্যা হতে পারে। বিশেষ করে প্যারাবেন থেকে ক্যানসারের ঝুঁকি সবচেয়ে বেশি থাকে। মহিলাদের স্তন ক্যানসার হওয়ার সম্ভাবনা বেড়ে যায়। 

 

তাই গর্ভাস্থায় আপনার লিপস্টিকে কী কী উপাদান আছে তা পরীক্ষা করে দেখুন।

 

ম্যাঙ্গানিজ, ক্যাডমিয়াম, ক্রোমিয়াম এবং অ্যালুমিনিয়াম যে লিপস্টিকে আছে, তা ব্যবহার না করাই ভালো। এগুলি শরীরে প্রবেশ করলে নানা ধরণের ক্ষতি করতে পারে। এমনকী, বেশ কয়েক বছর পরেও এগুলো শরীরে জমে থেকে পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি করতে পারে। তাই লিপস্টিক কেনার সময় দেখে নিন তাতে যেন এই উপাদানগুলি না থাকে।

 

READ MORE:  অস্টিওপরোসিস হবে যে অভ্যাসগুলো থাকলে