Benefits of pears( নাশপাতি খাওয়ার উপকারিতা) Health Tips in Bangla

Benefits of pears( নাশপাতি খাওয়ার উপকারিতা) Health Tips in Bangla

 

Pears is a well fruit. Pears are a very nutritious fruit. There are many benefits to eating pears. Each of us should make it a habit to eat pears regularly.

 

Benefits of pears – নাশপাতি খাওয়ার উপকারিতা 

 

নাশপাতি ( pears) হল মিষ্টি, ঘণ্টা আকৃতির ফল যা প্রাচীন কাল থেকে উপভোগ করা হয়েছে। এগুলি খাস্তা বা নরম খাওয়া যেতে পারে।

 

এগুলি কেবল সুস্বাদু নয়, বিজ্ঞান দ্বারা সমর্থিত অনেক স্বাস্থ্য সুবিধাও অফার করে। 

 

একটি মাঝারি আকারের নাশপাতি (১৭৮ গ্রাম) নিম্নলিখিত পুষ্টি সরবরাহ করে- 

 

ক্যালোরি: ১০১ গ্রাম

প্রোটিন: ১ গ্রাম

কার্বোহাইড্রেট: ২৭ গ্রাম

ফাইবার: ৬ গ্রাম

ভিটামিন সি: দৈনিক চাহিদার ১২% 

ভিটামিন কে: দৈনিক চাহিদার ৬%

পটাসিয়াম: দৈনিক চাহিদার ৪%

কপার: দৈনিক চাহিদার ১৬%

Benefits of pears

১) নাশপাতি রক্তে অ্যালকোহলের পরিমাণ কমায়। এক গবেষণায় জানা যায়, যারা নাশপাতির জুস খায় তাদের স্মরণশক্তি ভালো থাকে এবং আলো কিংবা শব্দের প্রতি সংবেদনশীলতা কমে আসে।

 

২) নাশপাতিতে বিদ্যমান পলিফেনল টাইপ-২ ডায়াবেটিস প্রতিরোধ করে। পলিফেনল রক্তের শর্করার পরিমাণ কমায়। নাশপাতি খেলে ইনসুলিনের সংবেদনশীলতা বাড়ে। এটি চোখ, ত্বক এবং কিডনির সমস্যাও দূর করে।

 

৩) নাশপাতিতে ফলিক এসিডসহ গর্ভাবস্থার জন্য অন্যান্য উপকারী পুষ্টিগুণ রয়েছে। চিকিৎসকদের মতে, গর্ভবতী নারীদের জন্য প্রয়োজনীয় ফলিক এসিডের পরিমাণ সবচেয়ে বেশি থাকে নাশপাতিতে। মহিলাদের বিভিন্ন রোগ সহ মেনোপোজ পরবর্তী বিভিন্ন জটিলতা কাটাতে নাশপাতির জুড়ি নেই।

 

৪) শিশুদের প্রায়ই প্রথম ফল হিসেবে নাশপাতি দেওয়া হয়। শুধু পুষ্টিগুণের জন্য নয়, এটি অ্যালার্জির পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া কমায়। যারা অ্যালার্জি সমস্যায় ভোগে তাদের জন্য নাশপাতি খুবই উপকারী।

 

৫) উচ্চ মাত্রায় মিনারেল থাকার কারণে নাশপাতি দেহে ক্যালসিয়ামের যোগান দেয়। এটি হরমোন উৎপাদন এবং হাড়ের ক্ষয়রোধ করে। এ ছাড়াও নাশপাতিতে আছে হাড়ের জন্য অত্যাবশ্যকীয় ‘ভিটামিন কে’।

READ MORE:  কনুই এর কালো দাগ দূর করুন ঘরোয়া পদ্ধতিতে

 

৬) এছাড়াও দাঁতের মাড়ি ক্ষতিগ্রস্ত হলে নাশপাতির রস ও অল্প ফিটকিরি মিশিয়ে রেখে সকালে খেলে মাড়ির ক্ষয় পূরণ হয়। খুশকি ও মাথার চুল পড়ে গেলে নাশপাতির রস ১০-১৫ দিন খেলে চুল পড়া ও খুশকি দূর হয়।

 

৭) কোষ্ঠকাঠিন্য দূর করতে নাশপাতির জুড়ি নেই। বিকেলে বা রাতে খাওয়ার পর নাশপাতি খেলে কোষ্ঠকাঠিন্য দূর হয়।

 

৮) নাশপাতির জুস গলা পিচ্ছিল করে, কফ এবং ভাইরাল সংক্রমণ কমায়।

 

৯) নাশপাতিতে প্রচুর পরিামাণে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট আছে। এই ফল তাই ক্যানসার প্রতিরোধ করতে পারে। ব্রেস্ট, লাং, প্রোস্টেট, কোলন ও রেকটাম ক্যানসার দূর করে নাশপাতি।

 

১০) প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন সি থাকে নাশপাতিতে। ভিটামিন সি ও অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট বেশি থাকার কারণে এই ফল রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়িয়ে দেয়। তাই ফ্লু অথবা ঠাণ্ডাজনিতে রোগের জন্যও উপকারী এ নাশপাতি।

 

১১) নাশপাতিতে প্রচুর আয়রন ও কপার থাকে, যার ফলে অ্যানিমিয়া, মাংস পেশির দুর্বলতা, ক্লান্তি ও শারীরিক অবসাদ দূর হয়।

 

নাশপাতি ( pears) ব্যাপকভাবে পাওয়া যায় এবং আপনার ডায়েটে যোগ করা সহজ। আপনি এগুলি ত্বকের সাথে পুরো খেতে পারেন বা এগুলিকে প্রধান খাবারে অন্তর্ভুক্ত করতে পারেন। এই ফলগুলি বিশেষত সুস্বাদু হয় যখন ভাজা বা পোচ করা হয়।