পুরনো খবরের কাগজ হলুদাভ কেন হয়

আমাদের সবার বাসায়ই তো পুরনো দিনের খবরের কাগজ পড়ে থাকে। খেয়াল করলে দেখব সেই খবরের কাগজ গুলো সবসময় হলুদ হয়। সাদা  খবরের কাগজগুলো সময়ের পরিক্রমায় হলুদাভ রং ধারণ করে। সেটি প্রথম আলো বা যেকোনো আগের পত্রিকায় হোক না কেন।  এমনটি হওয়ার পিছনে কারণ কি? চলুন জেনে আসার চেষ্টা করি। 

 

কেন হলুদাভ হয়ে যায় সাদা কাগজ সেটি বুঝতে হলে আগে আমাদের কাগজ তৈরির প্রক্রিয়া সম্পর্কে জানতে হবে। কাগজ মূলত তৈরি করা হয় কাঠ থেকে। গাছ থেকে কাঠ কেটে সেই কাঠের উপরের অংশ কেটে আলাদা করা হয়। কাঠের ভিতরে থাকে আঁশ জাতীয় অংশ। এই আঁশ জাতীয় অংশই প্রয়োজন কাগজ তৈরির জন্য। এই আঁশ জাতীয় পদার্থ পানি দিয়ে দীর্ঘদিন ভিজিয়ে রাখা হয়। ভিজিয়ে নরম করে এগুলো মেশিন দিয়ে পিষে মন্ডের মতো তৈরি করা হয়। তারপর সেই মন্ডতে নানা রকম ক্যামিকেল মিশিয়ে তৈরি করা হয় কাগজ। এই যে আঁশ জাতীয় পদার্থ যেটি থেকে কাগজ তৈরি করা হচ্ছে এটি হলো সেলুলোজ ও লিগনিন দ্বারা গঠিত। সেলুলোজ ও লিগনিন এর একটি বিশেষ বৈশিষ্ট্য হলো, সেলুলোজ ও লিগনিন সূর্যের আলোর সংস্পর্শে এসে বাতাসের অক্সিজেনের দ্বারা জারিত হয়। অক্সিজেন দ্বারা জারিত হওয়ার ফলে খবরের কাগজ হলুদাভ রং ধারণ করে। এই কারণেই ঘরে পড়ে থাকা পুরোনো দিনের খবরের কাগজ গুলো এমন হলুদাভ হয়ে যায়।

 

কিন্তু শুধু খবরের কাগজই কেন এমন হয়? বই খাতার যে কাগজ গুলো আছে সেগুলো কেন হলুদাভ রং ধারণ করে না? 

 

কারণ খবরের কাগজ তৈরি করা হয় সাধারণ গাছের কাঠ থেকে। এই কাগজগুলো এত উন্নত মানের নয়। ফলে খরচ কম পড়ে। পত্রিকা গুলো বড় বড় পাতায় ছাপা হয়। যদি কাগজের মানের কারণে দাম বেড়ে যায় তাহলে যে পত্রিকা আমরা দশ টাকা কিংবা পাঁচ টাকায় কিনি তা বিশ টাকায় কিনতে হবে। কিন্তু খবরের কাগজের মতো এত প্রয়োজনীয় একটি জিনিসকে আপামর জনসাধারণের ক্রয় ক্ষমতার মধ্যে রাখার জন্য খবরের কাগজের দাম কমানো দরকার। তাই এতো উন্নতমানের কাগজ খবরের কাগজে ব্যবহার করা হয় না। এছাড়াও আজকের খবরের কাগজ তো আর পরের দিন পড়ার দরকার হয় না। তাই নিম্নমানের কাগজ ব্যবহারে সমস্যা নেই। উন্নত মানের কাগজ যা আমাদের বই খাতায় ব্যবহার করা হয় তা তৈরি করা হয় তুলো থেকে। তুলো থেকে তৈরি কাগজ অনেক উন্নতমানের হয়। এছাড়া প্যাপিরাস নামক গাছের বাকল থেকে তৈরি কাগজও অনেক বেশি ভালো ও দামী।