কর্মক্ষেত্রে দুপুরের খাবারের নিয়ম

কর্মক্ষেত্রে সফলতার জন্য থাকা চাই ফিট। বেশিরভাগ সময়ই আমাদের দুপুরের খাবার খেতে হয় কর্মক্ষেত্রে। কাজের ফাঁকে অফিসে দুপুরের খাবার সময় মতো এবং ঠিকভাবে খাওয়া হয় না বেশিরভাগ সময়ই। প্রতিনিয়ত এই অনিয়ম স্বাস্থ্যের জন্য অত্যন্ত ক্ষতিকর। অন্যদিকে তাড়াহুড়া করে খেতে গিয়ে অনেক সময় খরচ হয়ে যায় বেশ কিছু টাকা। তাই চাকরিজীবীরা দুপুরে কর্মক্ষেত্রে কীভাবে মধ্যাহ্নভোজ করবেন, তাই নিয়ে আজকের আলোচনা। 

খাবার ভালোভাবে চিবিয়ে খান: খাবার মুখে নিয়ে ভালোভাবে ধীরে ও সময় নিয়ে চিবিয়ে খেলে খাবার থেকে পুষ্টি বেশি পরিমাণে নিঃসৃত হয়। তাছাড়া ভালোভাবে চিবিয়ে না খেলে ওই খাবার হজমেও সমস্যা হয়। তাই সময় নিয়ে ভালোভাবে চিবিয়ে খাবার খেতে হবে।

স্বাস্থ্যকর খাবার খান: দুপুরে চটজলদি খাবার পাট চুকিয়ে নিতে অনেকেই ‘জাঙ্ক ফুড’ খেয়ে থাকেন।

শোনা বলেন, “এ ধরনের খাবারে প্রচুর চর্বি ও শর্করা থাকে। এ উপাদানগুলো কিছু সময়ের জন্য শরীরকে চাঙ্গা করে তুললেও কিছুক্ষণ পরই শরীরে ক্লান্তি অনুভূত হতে শুরু করে।”

তাই খাবারে পরিমাণ মতো পুষ্টিকর প্রোটিন খাওয়া উচিত। এ ধরনের খাবার হজম হতে সময় নেয় তাই অনেকটা সময় পেট ভরা থাকে।

বিরতি নিন: দুপুরের খাবার খাওয়ার জন্য বিরতি নিলে শরীরে ‘কোলেসিসটকিনিন’ বা সিসিকে নামক একটি হরমোন নিঃসৃত হয়। এই হরমোন পেট ভরে যাওয়ার অনুভূতি সৃষ্টি করতে সাহায্য করে। এতে পর্যাপ্ত খাবার খাওয়ার পর পেট ভরে যায় এবং অতিরিক্ত খাবার খাওয়ার সম্ভাবনাও কমে আসে।

পানি পান করুন: জুস বা কোমল পানীয়তে প্রচুর চিনি থাকে। যা শরীরের ক্ষতি করে। তাই সব বাদ দিয়ে প্রচুর পানি পান করতে হবে

দ্রুত খাওয়ার অভ্যাস ত্যাগ করুন: ব্রিটিশ পুষ্টিবিদ শোনা উইলকিনসন বলেন, “দ্রুত খাওয়া বেশ কিছু দিক থেকে শরীরের জন্য ক্ষতিকর। কাজের ফাঁকে অনেকেই তাড়াহুড়া করে টেবিলের উপর ঝুঁকে খাবার খেয়ে থাকেন। যা একদমই ঠিক নয়। খাওয়ার সময় সোজা হয়ে বসে সময় নিয়ে খাওয়া উটিত।”

READ MORE:  অ্যানাফিল্যাকটিক শক, এলার্জির ভয়াবহতম রূপ

ধীরে খেলে তা পাচন প্রক্রিয়াকে উন্নত করে এবং খাওয়ার পর অস্বস্থিভাব অনুভূত হওয়ার সম্ভাবনাও কমে আসে।