স্বাধীনতার মানে – কবিতা

 

স্বাধীনতার মানে

মোঃ রিয়াজুর রহমান রিয়াজ

 

 

জন্ম আমার ‘৯৯ এর শেষে 

স্বাধীনতা মানে কি আমার মোটেও আসে না বুঝে।

বাপ-দাদার মুখে শোনা স্বাধীনতা

বর্তমানের সাথে নাই যার মিল ছিটেফোঁটা। 

নিজের অধিকার আদায়ের নাম যদি বলি স্বাধীনতা 

তাহলে হয়তো আমি অনেকখানি বোকা।🥱

তাহলে কি সেই স্বাধীনতা??

যার জন্য লক্ষ্য যুবক করে নাই নত মাথা!!

সুন্দর সুশীল জীবন ছেড়ে 

রাজপথে নামে একা।

কোন সে স্বাধীনতা 

যাহার কারণে অজস্র মা-বোন

হয়েছে বীরাঙ্গনা। 

কোন সে স্বাধীনতা 

যার জন্য মায়ের কোলে জমাট বাঁধে 

সন্তানের রক্তের ফোঁটা -আজো তা অজানা।

স্বাধীনতা 

সে আবার কি!!

মস্ত নীল আকাশে বিহঙ্গের বিচরণ 

নাকি কোকিলের তৈরি করা বাসায়

কাকের অবাধ চলন??

আমার কাছে তো স্বাধীনতা মানে

ভোগ বিলাস আর মজা,

অর্থ বিত্ত আর ক্ষমতার জোরে

পুরা রাষ্ট্র মোর মামার বাড়ির মোয়া।

আমার কাছে স্বাধীনতা মানে

জন্মের পর নয় শুধু কথা বলা

বাল্যকালের দুরন্তপনা ফেলে

সকলের উপরে থাকা। 

স্বাধীনতা মানে 

সত্যকে ভুলে মিথ্যা চামচামিতে 

নিজের উন্নতি সাধন।

এদিকে আমি সমাজের কাছে 

যতোই হইনা মদন।

স্বাধীনতা মানে 

ঘুষের টাকায় অর্থের পাহাড় গড়া

প্রতিবাদে তার থাপ্পরের সাথে গলা ধাক্কা।

সাথে তার প্রবচন-ব্যাটা গরীব,

দুবেলা দুমুঠো খেতে পারিস এটাই মেলা।

স্বাধীনতা মানে আমার কাছে

গরীবের ফাঁটা শার্ট- ছিড়ে পায়জামা,

অথচ তাদের ভ্যাটের টাকায় 

আমার বিলাসবহুল চলা।

স্বাধীনতা মানে

রাস্তার পাশে মানুষ-কুকুরের রুটি নিয়া টানাটানি 

অথচ আমি পার্টিতে গিয়ে 

বিদেশিদের সাথে দেশের উন্নতির কথা বলি।

স্বাধীনতা মানে  

রাজপথ ফাঁকা নেতাদের আগমনে,

অথচ আমার মায়ের ছটফটানি 

রাস্তার কোন জ্যামে এম্বুলেন্সেই যায় থেমে।

স্বাধীনতা মানে

পাওয়া না পাওয়ার কঠিন সেই হিসাব

যার অগোচরে পিষ্ট হবে

বেচারা দেশের জনগণ সব।

স্বাধীনতা মানে

রক্ষকের ভক্ষক হওয়ার নীতি,

নিজের অধিকার আদায়ে শত দরবারে ছোটাছুটি। 

ক্ষমতার কাছে টিকে না যাহার কোন রীতি 

আমার মায়ের চোখের পানি বয়ে যায় মিছিমিছি। 

স্বাধীনতা মানে 

কথায় কথায় লাথি গরীবের পেটে,

অন্যায় আর অবিচার সব

সয়ে যাওয়া নীরবে।

স্বাধীনতা মানে

নিজের খেয়ে অন্যের দালালি

সাম্প্রদায়িকতার বেড়াজালে

এপার ওপার মাতামাতি।।

স্বাধীনতা মানে 

চক্ষু থেকেও অন্ধ আমি-মুখ থাকতেও বোবা।

স্বাধীনতা মানে 

জনগণের টাকায় বিদেশ পাড়ি দেওয়া।

অনেক হয়েছে 

বডড ক্লান্ত আজ আমি এই স্বাধীনতায়

পরাধীনতার শিকল মোরে দাও পরিয়ে পায়।

আবারো যাতে জাগতে পারি আপন মহিমায়

রাজপথ যেন রঞ্জিত হয় ভাষা শহীদের ন্যায়।

আবার আমি চাই একটা একাত্তর 

যার মাঝে থাকবে না উপরের সব উত্তর।

আবার যেন জেগে ওঠে মোর ক্ষুদিরাম-প্রীতিলতা

যার মাঝে খুঁজে পাব আমি বাপ-দাদার স্বাধীনতা।

হায় স্বাধীনতা!! 

তুমি কই স্বাধীনতা?? 

 

 

 

লেখক

মোঃ রিয়াজুর রহমান রিয়াজ

পদার্থ বিজ্ঞান বিভাগ,

   হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়