যেভাবে খুঁজে বের করবেন আপনার আদর্শ বিজনেস আইডিয়া

বিজনেস আইডিয়া আপনার চারপাশে ঘুরে বেড়াচ্ছে। আপনার চারপাশের জীবন এবং মানুষের প্রয়োজনীয়তার দিকে নজর দিলেই আপনি বিভিন্ন ধরনের বিজনেস আইডিয়া খুঁজে পাবেন।

তবে প্রাথমিকভাবে এই বিজনেস আইডিয়া খুঁজে বের করা কিছুটা কঠিন। তার জন্য আপনাকে বেশ খানিকটা পরিশ্রম এবং অনেকখানি রিসার্চ করতে হবে।

বিজনেস আইডিয়া গুলো খুজে বের করার জন্য আপনার দক্ষতা থাকতে হবে এবং নিজের মস্তিষ্ককে ঝাঁকুনি দিয়ে আইডিইয়া গুলোকে বের করে নিয়ে আসতে হবে।

আজকে আপনাদের সাথে বিজনেস আইডিয়া খুঁজে বের করার ৮টি পদ্ধতি শেয়ার করব। ইনশাল্লাহ পদ্ধতিগুলো আপনাদের কাজে লাগবে বলে আশা করি।

 

১। নিজের সাথে একটি নোটবুক রাখুন

আপনার দৈনন্দিন জীবনের মাঝে আপনাকে অনেক কাজের ভিতর দিয়ে যেতে হবে। আপনাকে অনেক মানুষের সাথে মিশতে হবে এবং তাদের সাথে কথাবার্তা বলতে হবে।

কখন কোন সময় আপনার মাথায় বিজনেস আইডিয়া চলে আসবে তা বলা যায় না? তাই নিজের সাথে একটি ছোট নোটবুক রাখুন।

যাতে কোন বিজনেস আইডিয়া আপনার মাথায় আসলে সাথে সাথে লিখে ফেলতে পারেন। যাতে সেই আইডিয়াটি আপনার মস্তিষ্ক থেকে হারিয়ে না যেতে পারে।

আপনি চাইলে আপনার মোবাইলের নোটবুক ব্যবহার করতে পারেন। সে ক্ষেত্রে আপনার সাথে একটি আলাদা নোটবুক রাখার প্রয়োজন থাকবে না।

২। আপনার আগ্রহের বিষয়গুলোকে নেড়েচেড়ে দেখুন

বিজনেস আইডিয়া পাওয়ার সবচেয়ে ভালো উপায় হচ্ছে নিজের আগ্রহের বিষয়গুলোকে নেড়েচেড়ে দেখা।

যে সকল বিষয়ে আপনার আগ্রহ আছে সে সকল বিষয়ে দিয়ে কোন বিজনেস শুরু করা যায় কিনা সেটি প্রথমে ভেবে দেখুন।

আপনার পছন্দের বিষয়কে আপনার পেশার রূপান্তরিত করতে পারলে আপনার সফল হওয়ার সম্ভাবনা সবচেয়ে বেশি।

কারণ আপনি আপনার ভাললাগা বিষয় নিয়ে কাজ করছেন। তাই আপনার আগ্রহের বিষয়গুলো নিয়ে ভাবুন। দেখুন তার থেকেও এক বা একাধিক বিজনেস আইডিয়া আপনি পেয়ে যেতে পারেন।

 

৩। আপনার দক্ষতার দিকে নজর দিন

হয়তো আপনি আপনার ব্যক্তিগত জীবনে এক বা একাধিক বিষয়ে দক্ষ থাকতে পারেন। আপনি যে বিষয়ে দক্ষ তা নিয়ে ভেবে দেখুন।

আপনার দক্ষতাকে কাজে লাগিয়ে কোন বিজনেস শুরু করা যায় কিনা? নিজের দক্ষতাকে বিজনেসের কাজে লাগাতে পারলে আপনি অনেক তাড়াতাড়ি সফলতার মুখ দেখতে পাবেন।

তাই আপনার দক্ষতার দিকে নজর দিন। কে জানে এই দক্ষতা দিয়ে হয়তো আপনাকে এক বা একাধিক বিজনেস আইডিয়া দিতে পারে।

 

৪। মানুষের প্রয়োজনীয়তার  দিকে নজর দিন

মানুষের দৈনন্দিন জীবনে কোন কোন জিনিসের প্রয়োজন রয়েছে তার দিকে তাকালেই আপনি অনেক ধরনের বিজনেস আইডিয়া পেয়ে যাবেন।

আপনার সমাজে কোন কোন পণ্য বা সেবার মান খারাপ তার দিকে তাকান। আপনার আশেপাশে কোন কোন পণ্য এখনো নেই তা খুঁজে বের করুন।

এগুলো আপনাকে নতুন নতুন বিজনেস আইডিয়া দেবে। আপনার আশেপাশের মানুষ কোন সমস্যায় ভুগছে কিনা তা দেখুন? আপনি কি তার সমাধান দিতে পারেন?

যদি পারেন তবে সেটিকে আপনার বিজনেস হিসাবে দাঁড় করাতে পারেন। আপনার অঞ্চলে অনেক পণ্য বা সেবা থাকলে তাতে ভয় পাওয়ার কিছু নেই।

সকল প্রতিষ্ঠান হয়তো মানুষের মন জয় করতে পারেনি। তবে আর আপনি বসে আছেন কেন? এখনই লেগে যান সেই সমস্ত কাজে।

যা আপনাকে ব্যবসায়িকভাবে হয়তো সফল করে তুলবে। তাছাড়া এই যুগে তথ্য সেবা খুব গুরুত্বপূর্ণ একটি বিজনেস সেক্টর।

তবে এই সেক্টরে দক্ষ লোকের এখনো অনেক অভাব রয়েছে। আপনি আপনার এলাকায় তথ্যসেবা চালু করতে পারেন।

 

৫। নিজের সুবিধা অসুবিধার কথা ভাবুন

নিজের প্রয়োজনীয়তা, সুবিধা এবং অসুবিধার কথা ভাবুন। এগুলোই আপনাকে অনেক নতুন বিজনেস আইডিয়া এনে দিবে।

আপনি কোন কোন ব্যাপারে অসুবিধায় রয়েছেন তা ভেবে দেখুন। সেই ব্যাপারে হয়তো আরো অনেকে অসুবিধায় রয়েছ।

এমনিভাবে আপনার প্রয়োজনীয়তার কথা ভাবুন। কোন কোন জিনিসের প্রয়োজন আপনি আপনার লোকালয় বসে পূরণ করতে পারছেন না?

সেসকল প্রয়োজন হয়তো আপনার লোকালয়ের অন্যরাও ভোগ করতে পারছে না। আপনি সে সমস্ত জিনিস দিয়ে বিজনেস শুরু করতে পারেন।

 

৬। মানুষের কথা মন দিয়ে শুনুন

আপনার বিজনেস আইডিয়া খোঁজার জন্য মানুষের কথা মন দিয়ে শুনতে হবে। অনেক সময় মানুষের বিভিন্ন কথা থেকে বিভিন্ন ধরনের বিজনেস আইডিয়া আপনার মাথায় আসতে পারে।

তাই মানুষের সাথে কথা বলার সময় তার কথা মন দিয়ে শুনুন। এছাড়াও বিভিন্ন সফল ব্যবসায়ীদের জীবনী সম্পর্কে জানুন। তাদের লেখা বই পড়ুন।

যা আপনাকে নতুন নতুন বিষয় ভাবতে সাহায্য করবে। আপনার সম্ভাবনার দুয়ারকে উন্মুক্ত করবে। এই পদ্ধতিতে আপনি অনেক ধরনের বিজনেস আইডিয়া পেতে পারেন।

 

৭। আপনার আইডিয়াগুলোকে কাগজে লিখে ফেলুন

বিভিন্ন সময় বিভিন্নভাবে আপনার মাথায় অনেক আইডিয়া আসবে। আইডিয়াগুলোকে কাগজে লিখে ফেলুন। এরপর বেশ খানিকটা সময় নিয়ে এসকল আইডিয়া নিয়ে নিজে নিজে আলোচনা করুন। 

এগুলোর সম্ভাবনা, সুবিধা এবং অসুবিধা গুলো বিবেচনা করুন। এই চিন্তা-ভাবনার সময় আপনার মাথার আরো নতুন আইডিইয়া আসতে পারে। অথবা পুরাতন কোনো আইডিয়াকে আপনি নতুন করে সাজাতে পারবেন।

 

৮। আপনার আশেপাশের চলমান ব্যবসাগুলো নিয়ে রিসার্চ করুন

আপনার আশেপাশে অনেক ধরনের ব্যবসা বিদ্যমান রয়েছে। বিভিন্ন মানুষ নিজেদেরকে বিভিন্ন ব্যবসার সাথে জড়িয়ে নিয়েছে।

আপনি আইডিয়াগুলোকে নির্বাচন করার পরে রিসার্চ করার কাজে মনোনিবেশ করুন। ব্যবসায়িকভাবে সফল হওয়ার জন্য এটি একটি গুরুত্বপূর্ণ ধাপ।