চা আমাদের সুস্বাস্থ্যের জন্য কতটা উপকারী?

চা আমাদের দেশে অত্যন্ত জনপ্রিয় একটি পানীয়। কিন্তু অনেকেই আবার চা পছন্দ করেন না। কিন্তু চা এর উপকারিতা অনেক। চা পানের উপকারিতা জানলে আপনি যদি একজন চা প্রেমি নাও হয়ে থাকেন তবুও চা পান করতে চাইবেন। চলুন জেনে আসি চা পানের চমৎকার কিছু উপকারি দিক সম্পর্কে। 

 

চা এ রয়েছে এন্টি এক্সিডেন্ট। এন্টি এক্সিডেন্ট ক্যান্সার প্রতিরোধে সাহায্য করে। চা এ রয়েছে ফ্যাল্ভোনয়েডস্ নামক এন্টি অক্সিডেন্টে যা আমাদের দেহের কোষকে সুরক্ষিত রাখে এবং ক্যান্সার প্রতিরোধ করে। সম্প্রতি গবেষণা থেকে জানা গিয়েছে চা তে  ভিটামিনও রয়েছে। চা এ উপস্থিত আছে আমাদের শরীরের জন্য অতি প্রয়োজনীয় ২ টি ভিটামিন। ভিটামিন ‘সি’ এবং ভিটামিন ‘এ’ চা এর মধ্যে পাওয়া যায়। বলার অপেক্ষা রাখে না যে ভিটামিন ‘সি’ আমাদের শরীরের জন্য কতটা উপকারী! ভিটামিন ‘সি’ রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায় আমাদের দেহে। ভিটামিন ‘এ’ রাতকানা রোগ প্রতিরোধ করে। ভিটামিন ‘এ’ এবং ভিটামিন ‘সি’ আমাদের শরীর সুস্থ রাখতে বিশেষভাবে কার্যকর। এছাড়া চা আমাদের শরীরের হৃদপিণ্ড সুস্থ রাখে এবং হার্ট অ্যাটাক প্রতিহত করে। চা এ রয়েছে পলিফেনল নামক এক প্রকার যৌগ যা  কার্ডিওভাসকুলার এর সুস্বাস্থ্য বজায় রাখতে বিশেষভাবে কার্যকর ভূমিকা পালন করে। কার্ডিওভাসকুলার হলো আমাদের দেহের সংবহনতন্ত্রের সাথে সম্পর্কিত, যা হৃদপিণ্ড ও রক্তনালীগুলিকে নিয়ে গঠিত। এদের প্রধান কাজ হলো  শরীরের টিস্যুতে পুষ্টি এবং অক্সিজেন বহন করা এবং সেগুলি থেকে কার্বন ডাই অক্সাইড এবং অন্যান্য বর্জ্য পদার্থ অপসারণ করা। চা পান করার ফলে আমাদের কার্ডিওভাসকুলার সুস্থ থাকে এবং রক্তের স্বাভাবিক প্রবাহ বজায় থাকে। ফলস্বরূপ আমাদের হৃদপিণ্ড সুস্থ থাকে এবং হার্ট অ্যাটাক ও যাবতীয় হৃদরোগের ঝুঁকি কমে যায়। চা তে রয়েছে থিওব্রোমিন নামক জৈব উপাদান যা হাঁপানী ও শ্বাসকষ্ট প্রতিহত করে। চা আমাদের শরীরের হাড়কে শক্ত করে। চা এর ভেতর রয়েছে বিভিন্ন সক্রিয় জৈব উপাদান যা আমাদের দেহের হাড়ের খনিজ পদার্থের ঘনত্ব বৃদ্ধি করে যার ফলে আমাদের হাড় মজবুত হয়। এভাবে চা হাড় ভাঙার ঝুঁকি হ্রাস করে। এছাড়া চা আমাদের শরীরের ওজন কমাতে সাহায্য করে। চা এ রয়েছে ক্যাটেচিন নামক এন্টি অক্সিডেন্ট। এই ক্যাটেচিন আমাদের দেহের বিপাক প্রক্রিয়াকে ত্বরান্বিত করে এবং আমাদের শরীরের চর্বি দ্রুত  ভাঙতে সাহায্য করে। চা তে রয়েছে ক্যাফেইন। ক্যাফেইন আমাদের দেহের শক্তির ব্যবহার বাড়ায় এবং ফলশ্রুতিতে আমাদের দেহের কোষগুলো আরও দ্রুত ক্যালরি পোড়াতে উদ্বুদ্ধ হয়। ফলস্বরূপ আমাদের দেহের ওজন কমে যায়। 

 

চা এর এত উপকারীতা রয়েছে তাই জন্য চা কিন্তু যত খুশি তত পান করা যাবে না। বিশেষজ্ঞদের মতে এক দিনে ৩-৪ কাপ (৭১০- ৯৫০ মিলি) চা পান শরীরের জন্য যথেষ্ট এবং তা আমাদের শরীর সুস্থ ও কর্মক্ষম রাখতে বিশেষভাবে অবদান রাখতে পারে।