চক্ষের তৃষ্ণা

লেখক
রাজেশ ঘোষ
পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়
চক্ষে আমার তৃষ্ণা বর
তোমারি দেখিতে চাওয়ার ইচ্ছা ।
যতই আমি দেখি তোমারে
মনে হয় যেন
এই তৃষ্ণা নিবারণ হবার নহে।
এই তৃষ্ণা,
চায় না আমি নিবারণ করতে ।
যদি হয়ে যেত এই তৃষ্ণার নিবারণ
তবে,
দেখার ইচ্ছা হত না তোমার ওই
সোনালী মুখের হাসি
হাজার খুশির মেলা যেখানে
তখন তুমি কার জন্য হাসতে ?
তোমার চুলগুলো হইত অগোছালো পড়ে থাকত,
ভুলে যেত ফুলের গন্ধ
তুমি কী তখন খোপায় ফুল বাধিতে না ?
দেখার ইচ্ছা হত না তোমার
কপালের ওই লাল টিপ খানা
যেটা ছাড়া তুমি বড়ই বেমানান ।
দেখার ইচ্ছা হত না তোমার
হাতের নানা রঙের চুরি
তখন তুমি চুরিগুলো কার জন্য পরতে ?
যদি হয়ে যেত এই তৃষ্ণার নিবারণ
তবে ,
তবে তোমার মায়াবী চোখ দুটি
কাজলের ভালোবাসা ভুলে যেত ।
তোমার ওই গোলাপী ঠোঁট খানা
লিপস্টিকের স্বাদ ভুলে যেত ।
তখন তুমি ওই লাল শাড়ি খানা
কার জন্য পড়তে?
তুমি ছাদে উঠতে ভুলে যেতে
তখন ওই নীল আকাশ,
ছাদের পাখিরা তোমার অভাব অনুভব করত
শিশির ভেজা ঘাসগুলো তোমার
কোমল পায়ের স্পর্শ আর পেত না ।
বসন্তের বিকেলে
তুমি ওই দোলনায় দোল খাওয়া ভুলে যেতে ।
ওগো নিরুপমা ,
আমি চাই না নিবারণ করতে
এই তৃষ্ণা
তুমি বিশ্বাস কর সত্যি বলছি আমি
এই তৃষ্ণা নিবারণ করতে চাই না ।
আমি চক্ষু মিলিয়া দেখিতে চাই তোমারে
তোমারে দেখেই কেটে যাক আমার সারাবেলা
তোমারে ভালোবেসে ।