ঘোড়া কেন দাঁড়িয়ে ঘুমায়?

 

ঘোড়া প্রাচীন কাল থেকেই মানুষের জন্য অত্যন্ত উপকারী একটি প্রাণী হিসেবে নানা কাজে ব্যবহার হয়ে আসছে। যুদ্ধ ক্ষেত্র, যাতায়াত সহ নানা ধরনের কাজে ঘোড়া আমাদের মানবজাতির জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখে এসেছে। আধুনিক যুগে যুদ্ধ ক্ষেত্রে, যাতায়াত ক্ষেত্রে ঘোড়ার ব্যবহার না থাকলেও এখনও অনেকে শখ করে ঘোড়া পুষে থাকে। এছাড়া বিশ্বের নানা প্রান্তে ঘোড়ার দৌড় প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়ে থাকে। একটি আজব ব্যাপার হলো ঘোড়া কে সবসময় দাঁড়িয়ে ঘুমোতে দেখা যায়। কিন্তু কেন?? কি কারণে ঘোড়া এমন করে? সব প্রাণীরা তো শুয়ে ঘুমায়। ঘোড়া তবে কেন ব্যতিক্রম? আসুন জানার চেষ্টা করি।

 

ঘোড়া এমন একটি প্রাণী যেটি যুদ্ধ ক্ষেত্রে ব্যবহৃত হতো। যুদ্ধবাজ এই প্রাণীটি নিজের স্বাচ্ছন্দ্যের জন্যই মূলত দাঁড়িয়ে ঘুমোতে পছন্দ করে। কিন্তু এমন নয় যে ঘোড়া বসে বা শুয়ে ঘুমোতে পারে না। ঘোড়া শুয়ে বা বসেও ঘুমোতে পারে। কিন্তু এরপরও ঘোড়া দাঁড়িয়ে ঘুমায়। কারণ ঘোড়ার শরীরের গঠন ঘোড়ার ন্যায় দেখতে অন্যান্য প্রাণী যেমন গরু, মহিষ এদের থেকে কিছুটা আলাদা। ঘোড়ার শরীরের ওজন এমন ভাবে বিভাজন করা যে ঘোড়া যদি একবার বসে পড়ে তাহলে তার শরীরের ভিতরের দিকের অঙ্গগুলোতে বাহিরের দিকের অঙ্গের অনেক বেশি চাপ পড়ে। এই চাপের ফলে ঘোড়া বসে বা শুয়ে ঘুমোতে অস্বস্তি বোধ করে। তাই ঘোড়া দাঁড়িয়ে ঘুমোতে বেশি পছন্দ করে। এছাড়াও ঘোড়া একটি যুদ্ধবাজ প্রাণী। প্রাচীনকাল থেকে ঘোড়া যুদ্ধ ক্ষেত্রে ব্যবহৃত হয়ে আসছে। যুদ্ধ ক্ষেত্রে যদি শত্রু আক্রমণ করে তাহলে অতি শীগ্রই ঘোড়াকে ওঠে দাড়াতে হবে। কিন্তু  ঘোড়া যদি আগে থেকে দাড়ানো থাকে তাহলে শত্রুর আক্রমণ প্রতিহত করা ঘোড়ায় ওপর সহজ হয়। কারণ ঘোড়ার দেহের বিশেষ গঠন এবং ওজনের বিভাজনের কারণে ঘোড়ার উঠে দাঁড়াতেই অনেক সময় লেগে যাবে আচমকা আক্রমণের সময়। তাই যুদ্ধ বাজ এই প্রাণী ঘোড়া সবসময় দাড়িয়ে থাকতেই বেশি পছন্দ করে। এমনকি এ কারণে তারা দাঁড়িয়েই ঘুমায়। এছাড়াও ঘোড়ার ঘুমের চাহিদা অত্যন্ত কম। যদিও ঘোড়া অত্যন্ত পরিশ্রমী প্রাণী। তবুও ঘোড়া মাত্র ২- ৪ ঘন্টা ঘুমায়। যেখানে আমরা মানুষরা কমপক্ষে ৬ ঘন্টা না ঘুমালে আমাদের ঘুমের চাহিদা পূরণ হয় না।