আলু কি হতে পারে চালের বিকল্প?

ভাতের পাশাপাশি আলু হতে পারে আমাদের প্রধান খাদ্য। আলু কমিয়ে দিতে পারে আমাদের স্থূলতা, উচ্চ রক্তচাপের ঝুঁকি। সজীব সুস্বাস্থ্যের অধিকারী হতে চাইলে আলু আমাদের খাদ্যাভাসে হতে পারে গুরুত্বপূর্ণ অনুষঙ্গ। দুর্মূল্যের বাজারে আলু কেনার মাধ্যমে আমরা করতে পারি অর্থ সাশ্রয়। আমরা চাইলেই দিনের কোনো এক বেলা ভাতের বদলে আলু খেতে পারি। ভাবছেন ভাতের বদলে আলু কেনও খাবেন? আলুর উপকারীতা জানলে আপনার চোখ কপালে উঠতে বাধ্য। চলুন জেনে আসি আলুর উপকারী দিক। 

 

সুস্বাস্থ্যের অধিকারী হতে চাইলে আপনাকে আলু খেতেই হবে। আলুতে স্নেহ ও শর্করার পরিমাণ চাল ও গমের থেকে কম। তাই যারা মোটা হওয়ার আশঙ্কায় আছেন তারা আলু খেতে পারেন নির্দ্বিধায়। সমপরিমাণ আলুতে যে পরিমাণ শর্করা থাকে তা সমপরিমাণ চাল বা গমের তিন ভাগের এক ভাগ। আলুতে ফ্যাটের পরিমাণও অনেক কম। তাই সুস্বাস্থ্য বজায় রাখতে ও স্থূলতা প্রতিরোধ করতে চাইলে আলু আপনাকে খেতেই হবে। 

 

জেনে অবাক হবেন, আলু ক্যান্সার ও বিভিন্ন রোগ প্রতিরোধ করতে পারে। আলুতে প্রায় ৬০ ধরনের ফাইটোকেমিক্যাল রয়েছে। এসব ফাইটোকেমিক্যাল ক্যান্সার, হৃদরোগ প্রতিরোধ করে। কোকোয়ামিনস নামক এক ধরনের উপাদান রয়েছে আলুর মধ্যে। এই কোকোয়ামিনস উচ্চরক্তচাপ কমাতে সাহায্য করে। আলুতে রয়েছে নানা রকমের এন্টি এক্সিডেন্টে। এইসব এন্টি অক্সিডেন্টে তারুণ্য ধরে রাখে, বয়স বেশি হলেও বুঝতে দেয় না। এন্টি অক্সিডেন্টে টিউমার, ক্যান্সার প্রতিরোধ করে। দেহ কোষকে সজীব ও কর্মক্ষম রাখে এন্টি অক্সিডেন্ট। আলুতে আছে ভিটামিন সি ও ভিটামিন বি ৬। ভিটামিন বি ৬ মস্তিষ্কের কর্মক্ষমতা বৃদ্ধি করে। ভিটামিন সি তো অত্যন্ত দরকারী। ভিটামিন সি কিন্তু দেহে জমা থাকে না। আলু ভিটামিন সি এর চাহিদা মেটাতে পারে। আমরা যে চাল খাই, এতে কিন্তু ভিটামিন সি নেই। 

 

এছাড়াও আলু কিন্তু সহজে হজম হয়। তাই যাদের হজমে সমস্যা তারাও আলু খেতে পারেন নিশ্চিন্তে। ডায়বেটিস রোগী ছাড়া আর কারও ক্ষেত্রে আলু খেলে কোনো সমস্যা নেই। এছাড়া আলু অনেক অর্থনৈতিক ভাবে সাশ্রয়ী। আপনি যদি এক কেজি চালের বিপরীতে এক কেজি আলু খান তবে আপনি অনেক অর্থ সাশ্রয় করতে পারবেন। আপনার পুষ্টি চাহিদাও পূরণ হবে। কৃষক ভাইয়েরা অল্প পরিমাণ পুঁজি দিয়ে আলু চাষ করে অনেক টাকা লাভ করতে পারেন। আলুর প্রতি হেক্টরে উৎপাদন ২৫ টন আর এই উৎপাদনে খরচ হয় এক লাখ টাকা। বিক্রি করলে লাভ পাওয়া যায় প্রায় তিন লাখ টাকার মতো। সুস্বাস্থ্য, অর্থনৈতিক সবদিক বিবেচনা করে আলু হতে পারে চালের অন্যতম প্রধান বিকল্প।